কাশ্মির সীমান্তে উত্তেজনা : বন্দি বিনিময়ে সম্মত ভারত-পাকিস্তান

3

কাশ্মির সীমান্তে উত্তেজনার মধ্যেই সুনির্দিষ্ট ধারার বন্দি বিনিময়ে সম্মত হয়েছে ভারত-পাকিস্তান। মানবিক ইস্যুতে ভারতের এ-সংক্রান্ত একটি প্রস্তাবে গত বুধবার সম্মতি দিয়েছে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডন জানিয়েছে, দুই দেশের জেলে আটক সুনির্দিষ্ট ৩ ধরনের বন্দিকে মুক্তি দিতে সম্মত হয়েছে চিরবৈরি দুই প্রতিবেশি দেশ। অনুমোদিত প্রস্তাবের আওতায় মুক্তি পাবেন পরস্পরের জেলে আটক থাকা নারী, সত্তরোর্ধ্ব ব্যক্তি ও মানসিকভাবে অসুস্থ ও প্রতিবন্ধীরা। তবে সাজা পেয়ে আটক থাকা কারাবন্দিদের বিনিময়ে দুই দেশ এখনও সম্মত হতে পারেনি। পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডন এই খবর নিশ্চিত করেছে। বিরোধপূর্ণ কাশ্মির সীমান্তসহ নানা ইস্যুতে পরস্পরের বিরুদ্ধে বৈরিতা পোষণ করে থাকে উপমহাদেশের পারমাণবিক শক্তিধর দুই দেশ ভারত ও পাকিস্তান। ১৯৪৭ সালে দেশ দুটি ব্রিটিশ উপনিবেশ থেকে স্বাধীনতা লাভের পর সরাসরি দুইবার নিজেদের মধ্যে যুদ্ধে জড়িয়েছে। সাম্প্রতিক দিনগুলোতে কাশ্মির সীমান্তে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা বেড়েছে। বেসামরিক নাগরিক হত্যার পাল্টাপাল্টি অভিযোগও আনছে তারা। পরস্পরের বিরুদ্ধে উগ্রপন্থিদের প্রশ্রয় দেওয়ার অভিযোগও করে থাকে দেশ দুটি। এরমধ্যেই আটক থাকা বন্দি বিনিময়ের খবর সামনে এলো। অনুমোদন পাওয়া প্রস্তাব অনুযায়ী দুই দেশই পরস্পরের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের অন্যান্যের কারাগার পরিদর্শনের অনুমতি দেবে। ওই চিকিৎসকেরাই বন্দিদের মানসিক অবস্থা পর্যালোচনা করে মুক্তি পাওয়ার যোগ্য বন্দিদের বিষয়ে সুপারিশ করবেন। ডনের খবরে বলা হয়েছে অনুমোদিত প্রস্তাবের আওতায় ভারতে আটক কমপক্ষে ৪০ পাকিস্তানি নাগরিক দেশে ফিরতে পারবেন। তবে কতজন ভারতীয় দেশে ফিরতে পারবেন তার পরিসংখ্যান এখনও জানা যায়নি। মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রী খাজা আসিফ কারাবন্দিদের উন্নয়নে ভারতকে আরও কিছু প্রস্তাবে সম্মত হতে আহ্বান জানিয়েছেন। সে সব প্রস্তাবের মধ্যে রয়েছে ষাটোর্ধ্ব ব্যক্কি ও ১৮ বছরের কম বয়সী শিশু কারাবন্দিদের মুক্তি। এসব প্রস্তাবে ভারতের ইতিবাচক পদক্ষেপ আশা করছে পাকিস্তান। তবে কারাবন্দিদের বিনিময়ের বিষয়টি এখনও পর্যালোচনার পর্যায়ে রয়েছে বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্র সচিব ড. মুহাম্মদ ফয়সাল। তিনি বলেছেন, জম্মু ও কাশ্মিরের নিয়ন্ত্রণ রেখায় অস্ত্রবিরতি লংঘন ও দুই দেশের উত্তেজনার মধ্যে তা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হচ্ছে না।