রেডিও মহানন্দা পরিদর্শন > গম্ভীরাকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটি নেতৃত্ব দিবে … অতিরিক্ত সচিব আমিনুল ইসলাম

রেডিও মহানন্দা পরিদর্শনকালে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আমিনুল ইসলাম বলেছেন, গম্ভীরাকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটি নেতৃত্ব দিবে। অন্য সংগঠন গুলোও এগিয়ে আসবে। গত কাল রবিবার তিনি এসব কথা বলেন। তাঁর অনুভূতি জানাতে গিয়ে প্রথমেই দু’কলি গম্ভীরা গেয়ে শোনান। তিনি বলেন, আমাদের প্রাণ জুড়িয়েছে। আমি সব বিখ্যাত মানুষের গান শুনেছি। কিন্তু গম্ভীরা গানের সুর, টান আমি কোনো দিন শুনিনি। আমি চাঁপাইনবাবগঞ্জ নিয়ে কবিতা, প্রবন্ধ, ছড়া লিখেছি। আমার লেখায় ইতিহাস, ঐতিহ্য, গম্ভীরা, পালাগান, কবিগান সবকিছুই লিখেছি। মহানন্দা নদীকে নিয়ে কবিতা লিখেছি। অন্য কিছু লিখতে গিয়েও চাঁপাইনবাবগঞ্জ চলে আসে। লোকগানের বিকল্প আধুনিক গান নয়, কবিতা নয়। আধুনিক গানে ও কবিতায় কিছু সীমাবদ্ধতা আছে। তবে আমার সুযোগ থাকলে গম্ভীরা নিয়ে কাজ করব। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেগে উঠেছে। আমি ৩ বছর পর আসলাম। কিন্তু আমার আরো আগে আসা উচিত ছিল। আজ এখানে এসে আমি ঋণি হয়েছি কি না জানি না কিন্তু লোভি হয়েছি। আমি আবার আসব। আমি প্রয়াসকে ধন্যবাদ দিতে চাই। আবারও আসতে চাই।
প্রয়াস ফোক থিয়েটার ইনস্টিটিউটের পরিবেশনায় ঐতিহ্যবাহী গম্ভীরা নিয়ে অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে অতিরিক্ত সচিব আমিনুল ইসলামের সহধর্মিনী রোকসানা পারভিন বলেন, দেখতে গিয়ে মনে হচ্ছে আমি চাঁপাইনবাবগঞ্জকে দেখতে পাচ্ছি। আমার নানা বা দাদা যা বলছে তা আমি দেখতে পাচ্ছি। এখানে নানা নাতি চাঁপাইনবাবগঞ্জকে এত অল্প সময়ে তুলে ধরার জন্য ধন্যবাদ। অতিরিক্ত সচিব আমিনুল ইসলামের মেয়ে ডালিয়া নওশীন লুবনা বলেন, আমারা যখন ইউনিভার্সিটিতে পড়েছিলাম তখন আমরাও একটা ছোটখাট থিয়েটার করেছিলাম। মঞ্চে উঠলে যে রক্তটা গরম হয়ে যায়, সেটা আমি এখানে বসে থেকেও রক্তটা গরম হয়ে যাচ্ছিল। আমাদের দেশের প্রত্যেকটা অঞ্চলের একটা সংস্কৃতি আছে যেটাকে আরও বেশি করে জাতীয় পর্যায়ে, ইউনিভার্সিটি পর্যায়ে নিয়ে যেতে হবে। আমার খুব ভালো লাগল এখানে এসে। আমি পুরোটা সময় মুগ্ধ হয়ে দেখেছি এবং সেটি আমি ভিডিও করেছি আমি আমার সকল বন্ধুদের এই ভিডিওটি দেখাবো। চাঁপাইনবাবগঞ্জের লেখক ও গবেষক জাহাঙ্গীর সেলিম বলেন, লোকসংগীতকে বাঁচাতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। আজকের পরিবেশনা থেকে আমি কিছু শিখলাম যা আমার বইয়ের পরবর্তী সংস্করণে কাজে দেবে। আমার কাছে খুব ভালো লাগল যে আমাদের নিজস্ব সংস্কৃতি তুলে ধরতে পারি এবং যার মাধ্যমে চাঁপাই উৎসব করবো। স্ব^াধীন সাহিত্য পরিষদের সম্পাদক এনামুল হক তুফান বলেন, আমি সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সাথে জড়িত থাকলেও আগে কখনো লোকসয়গীতের পরিবেশনা বসে দেখিনি। অনুষ্ঠান করি সাংস্কৃতিক অঙ্গনকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য কাজ করে থাকি কিন্তু বসে উপভোগ করার মত সময় হয়না। আজকে যখন বসে বসে দেখছি তখন আমার খুব ভালো লেগেছে এই অনুষ্ঠানটি আমাদের মাছে দীর্ঘদিন বেঁচে থাকবে।
প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটির নির্বাহী পরিচালক ও রেডিও মহানন্দার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হাসিব হোসেন বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের মানুষ মুখ লুকাতে পারে বেশি। আমরা গম্ভীরা নিয়ে কাজ করছি। অভিবাসি দিবসে প্রধানমন্ত্রীর সামনে প্রয়াস ফোক থিয়েটায়ের শিল্পীরা গম্ভীরা পরিবেশন করেছে। এগিয়ে যাবার পথে বাধা আসে। আমাদেরও এসেছে। আমরা তা কাটিয়ে উঠেছি। আর গম্ভীরাকে শুধু শোনানোর জন্য নয় বরং বিনোদন, শোনা ও দেখানোর জন্য কাজ করছি। আমরা গম্ভীরাকে ছড়িয়ে দিতে চাই।
বিকেলে সদর উপজেলার গোবরাতলা ইউনিয়নের চাঁপাই-পলশায় অবস্থিত রেডিও মহানন্দার স্টেশন পরিদর্শন করেন অতিরিক্ত সচিব আমিনুল ইসলাম। রেডিও মহানন্দা স্টেশনে পৌঁছার পর ফুল দিয়ে অতিথিদের বরণ করে নেন প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটির নির্বাহী পরিচালক হাসিব হোসেন ও রেডিও মহানন্দার ষ্টেশন ম্যানেজার আলেয়া ফেরদৌস। এ সময় রেডিও মহানন্দার থিম সং পরিবেশনার মধ্য দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিকতা। এর আগে প্রয়াস ফোকথিয়েটার ইনস্টিটিউটের পরিবেশনায় পট গান ও গম্ভীরা উপভোগ করেন অতিথিরা।
এসময় প্রয়াসের পরিচালক মো. মুখলেসুর রহমান, জেষ্ঠ্য উপ-পরিচালক নাসের উদ্দিন সজল, রেডিও মহানন্দার স্টেশন ম্যানেজার আলেয়া ফেরদৌস, টেকনিক্যাল অফিসার রেজাউল করিম টুটুলসহ প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটির উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। পরে রেডিও মহানন্দার ষ্টুডিও পরিদর্শণ করেন। এসময় রেডিও মহানন্দার লোগো লাগানো টি-শার্ট, মগ, স্মরণীকা অতিথিদের হাতে তুলে দেন প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটির নির্বাহী পরিচালক ও রেডিও মহানন্দার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হাসিব হোসেন।
উল্লেখ্য, পরিবেশনার মধ্যে ছিল, রেডিও মহানন্দার থিম সং, লোকগান ও সুর, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও কাজী নজরুল ইসলামকে নিয়ে গান, গম্ভীরা ও পটগান।