কাজের তালিকা ঘুমে সহায়তা করবে

টেক্সাসের বেইলর ইউনিভার্সিটির গবেষকরা বলছেন, ঘুমানোর আগে পরবর্তী দিনের কাজের তালিকা তৈরি করুন। এতে অন্যান্যের তুলনায় আপনার ভালো ঘুম হবে।
পরামর্শটা খুব সাধারণ শোনালেও এ বিষয়ে রীতিমতো গবেষণা করা হয়েছে। সম্প্রতি এ গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয় বিজ্ঞান সাময়িকী ‘জার্নাল অব এক্সপেরিমেন্টাল সাইকোলজি’তে। এতে বলা হয়, ঘুমানোর আগে পরবর্তী দিনের কাজের তালিকা লিখে রাখলে তা অন্যান্যের তুলনায় দ্রুত ঘুমিয়ে পড়তে সহায়তা করে।
এ অনুমানে পৌঁছানোর জন্য গবেষকরা ৫৭ জন স্বেচ্ছাসেবীকে একটা মনস্তাত্ত্বিক পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার আমন্ত্রণ জানান। বিশেষ ব্যবস্থার মাধ্যমে ল্যাবে ঘুমানোর উপযোগী পরিবেশ তৈরি করেন গবেষকরা। এরপর স্বেচ্ছাসেবকদের দুই দলে ভাগ করা হয়।
পরীক্ষার নিয়ম-নীতি খুবই সহজ। রাত সাড়ে ১০টায় ল্যাবের লাইট বন্ধ হয়ে যাবে এবং সবাইকে ঘুমানোর জন্য প্রস্তুত হতে হবে। ঘুমানোর সময় মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ ইত্যাদি প্রযুক্তি ব্যবহার করা যাবে না।
ঘুমানোর আগে স্বেচ্ছাসেবকদের পাঁচ মিনিট সময় দেওয়া হবে। এ পাঁচ মিনিটে এক দল স্বেচ্ছাসেবক তার সারাদিনের সম্পাদিত কাজের তালিকা তৈরি করবেন। অপরদল লিখে রাখবেন তার পরবর্তী দিনের কাজের তালিকা। তালিকা তৈরির কাজ শেষ হলে সবাইকে বিছানায় শুয়ে পড়তে হবে।
এরপর গবেষকরা পলিসমনোগ্রাফি নামে একটি বিশেষ পদ্ধতির মাধ্যমে প্রত্যেক স্বেচ্ছাসেবকের মস্তিষ্কের কার্যকলাপ পরীক্ষা করেন। এ পদ্ধতিতে মানুষের চোখের নড়াচড়া, পেশীর কার্যকলাপ এবং অন্য জৈবিক পরিবর্তন ধরা পড়ে।
গবেষকরা দেখেন, যারা সম্পাদিত কাজের তালিকা লিখেছেন, তাদের তুলনায় পরবর্তী দিনের কাজের তালিকা লেখা ব্যক্তিরা গড়ে ৯ মিনিট দ্রুত ঘুমিয়ে পড়ছেন। ঘুমানোর সময় তাদের মস্তিষ্কের কার্যকলাপও অন্যান্যের তুলনায় বেশ স্বাভাবিক।
গবেষকরা বলছেন, বেশির ভাগ মানুষের কাজকর্মই একটা নির্দিষ্ট রুটিনের মধ্যে আবদ্ধ। সে সব সময়ই মনে মনে কর্মপরিকল্পনা তৈরি করতে থাকে। আর রাতের বেলা ঘুমানোর সময় পরবর্তী দিনের কর্মপরিকল্পনা নিয়ে মানুষ সবচেয়ে বেশি চিন্তা করে ও উদ্বিগ্ন থাকে। ঘুমানোর আগে পরবর্তী দিনের কাজের তালিকা কাগজে লিখে ফেললে মস্তিষ্ক এ অতিরিক্ত চিন্তা থেকে নিজেকে মুক্ত করে ফেলে। ফলে তা ঘুমের সহায়ক ভূমিকা রাখে।