চাঁপাইনবাবগঞ্জে শীত জনিত ডায়রিয়া রোগী বাড়ছে

8

চাঁপাইনবাবগঞ্জে শীত জনিত ডায়রিয়া রোগির সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ৫১ জন রোগী। এর মধ্যে শিশুর সংখ্যায় বেশি। তবে ঠা-ায় সাবধানতা অবলম্বন করতে পরামর্শ দিয়ে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা।
গত কাল রবিবার বেলা ১১টার দিকে সদর হাসপালে আসন না পেয়ে অনেক রোগীকে মেঝেতে চিকিৎসা নিতে দেখায় গেছে। সদর উপজেলার কালিনগর এলাকার উম্মে সালমা নামে এক মা তাঁর ছেলে শিশু মিনহাজকে গত শনিবার বিকালে ভর্তি করেছেন। তিনি জানান, হাসপাতাল থেকে ওষুধ দেয়া হচ্ছে, তবে কিছু বাইরে থেকে কিনতে হচ্ছে। একই কথা বলেন সাত মাসের শিশু আবু সাইদের মা তাসলিমা বেগম। তিনিও শনিবার ছেলেকে ভর্তি করেছেন।
কর্তব্যরত নার্সরা জানান, ২২ ডিসেম্বর রাত ১২ টা থেকে ২৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয় ৪২ জন। তার মধ্যে ২৮জনই শিশু। গত কাল রবিবার বেলা ১১টা পর্যন্ত রোগী ভর্তি হয় ৬জন। আসন কম হওয়ায় মেঝেতে রাখা হয়।
সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) ডা. নাদিম সরকার বলেন-এ-ডায়রিয়া শীত জনিত। গত ২৪ ঘন্টায় ৫১ জন রোগী ভর্তি হয়েছে। তিনি জানান, দুয়েকটি ওষুধ ছাড়া সকল প্রকার ওষধুই ভর্তি রোগীদেরকে দেয়া হচ্ছে। তিনি বলেন-অতিরিক্ত ঠা-ায় বিশেষ করে শিশু ও বয়স্কদেরকে গরম কাপড় ও হাল্কা গরম পনি ব্যবহার করতে হবে। এককথায় সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে।
সিভিল সার্জন ডা. সায়ফুল ফেরদৌস মুহাম্মদ খায়রুল আতাতুর্ক বলেন-শীতের তারণে শুধু সদরেই ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে। তবে ভয়ের কিছু নেই, ডায়রিয়া নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ইতোমধ্যে তিন হাজার খাবার স্যালাইন মজুদ করা হয়েছে। অন্য কোন উপজেলায় ডায়রিয়া রোগী নেই। তিনি গরম খাবার খেতে এবং পানি ফুটিয়ে পান করার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন। বিশেষ করে শিশুদের যেন কোনভাবেই ঠা-ায় না রাখা হয় সেদিকে অভিভাবকদের খেয়াল রাখার আহবান জানান।