খালেদার বহর ফেরার পথে বাসে পেট্রোলবোমা

রোহিঙ্গাদের ত্রাণ বিতরণ শেষে কক্সবাজার থেকে ঢাকায় ফেরার পথে ফেনীর মহিপালে খালেদা জিয়ার গাড়িবহরের কাছে বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিরা বলছেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের বহর পার হওয়ার সময় দুটি বাসে পেট্রোলবোমা ছুড়ে মারে দুর্বৃত্তরা। তবে এ কারা এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তা জানা যায় নি। নিক্ষিপ্ত পেট্রোলবোমায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে। প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিরা বলেন, বিকেল সাড়ে চারটার দিকে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গাড়িবহর ফেনীর মহিপাল অতিক্রম করছিল। এ সময় সেখানে একটি পেট্রল পাম্পের ৩০০ গজ দূরে দাঁড়িয়ে থাকা দুটি বাসে পেট্রলবোমা ছুড়ে মারে দুর্বৃত্তরা। এতে বাস দুটিতে আগুন ধরে যায়। একটি বাসের চালক দাবি করেছেন, বাসটিতে পেট্রল বোমা ছুড়ে মেরেছে দুর্বৃত্তরা। ঘটনার পরপরই ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা গিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। রোহিঙ্গাদের ত্রাণ বিতরণ শেষে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গাড়িবহর নিয়ে ঢাকায় ফেরার পথে ফেনীর মহিপাল পার হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দুটি বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার বিকাল ৪টা ৫০ মিনিটের দিকে বাসগুলোতে আগুন দেওয়া হয়। এর একটি সুগন্ধা পরিবহনের আর একটি চৌদ্দগ্রাম ট্রান্সপোর্টের। গাড়ি দুইটির অংশবিশেষ পুড়ে গেছে। একটি বাসের চালক দাবি করেছেন, বাসটিতে পেট্রল বোমা ছুড়ে মেরেছে দুর্বৃত্তরা। চৌদ্দগ্রাম ট্রান্সপোর্টের বাসটির চালক হারুন দাবি করেন, তিনি বাসটির চালকের আসনে বসে ছিলেন। এসময় কে বা কারা গাড়িতে পেট্রোল বোমা ছুড়ে মারে। প্রাণ বাঁচাতে দ্রুত তিনি বাস থেকে নেমে যান। এরপরই বাসটিতে আগুন ধরে যায়।ফেনী মডেল থানার ওসি রাশেদ খান চৌধুরী জানান, কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা তদন্ত করে বের করা হবে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ফেনীর পুলিশ সুপার এস এম জাহাঙ্গীর আলম সরকার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি জানান, তদন্ত শেষে বলা যাবে কারা বাস দুইটিতে আগুন দিয়েছে। গত শনিবার ঢাকা থেকে কক্সবাজার যাওয়ার পথে ফেনীর প্রবেশমুখে খালেদা জিয়ার গাড়িবহরের পেছনের দিকে থাকা গণমাধ্যমকর্মীদের গাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটেছিল।