ডোপিং নিয়ে বোল্টের সতর্কবার্তা

ক্যারিয়ারের শেষ ধাপের দোড়গোড়ায় দাঁড়িয়ে অ্যাথলেটদের অবৈধ ওষুধ ব্যবহার করা থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন উসাইন বোল্ট। এখনই এসব বন্ধ না করলে একদিন খেলাধূলা শেষ হয়ে যাবে বলে আশঙ্কা দ্রুততম মানবের। অলিম্পিকে ১০০ ও ২০০ মিটারের ট্রিপল চ্যাম্পিয়নের মতে, রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় ডোপিংয়ের ঘটনা প্রকাশ হওয়ার পর ওই বাজে অবস্থা কাটিয়ে উঠছে ক্রীড়াবিশ্ব। তবে অবৈধ ওষুধ ব্যবহারের প্রবণতাকে পুরোপুরি বন্ধ করতে আরও অনেক কিছু করতে হবে বলে মনে করেন জ্যামাইকার এই গতিমানব।
রাশিয়ার ওই ঘটনা উল্লেখ করে লন্ডনে গত মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে বোল্ট বলেন, “আমার মনে হয় না, এর চেয়ে খারাপ পরিস্থিতি আর হতে পারে। তবে এখন তা কাটিয়ে ওঠার পথে। আশা করা যায়, অ্যাথলেটরা দেখবে কি হচ্ছে এবং বুঝতে পারবে তারা যা করছে তা বন্ধ না করলে খেলাধূলা শেষ হয়ে যাবে।
বোল্টের আলো ঝলমলে ক্যারিয়ারেও পরোক্ষভাবে ডোপিংয়ের বিরূপ প্রভাব পড়েছে। অলিম্পিকের গত তিন আসরে ১০০ মিটার, ২০০ মিটার ও ৪*১০০ মিটার রিলেতে সোনা জিতেন তিনি। তবে তার সে অনন্য ‘ট্রিপল ট্রিপল’ রেকর্ডটি আর নেই।
২০০৮ সালে বেইজিং অলিম্পিকে জ্যামাইকার ৪*১০০ মিটার রিলেতে সোনা জয়ী দলের সদস্য নেস্টা কার্টারের নিষিদ্ধ উপাদান নেওয়ার বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় বোল্টকে একটি অলিম্পিক সোনার পদক ফিরিয়ে দিতে হয়েছে।
তবে সবকিছুর পরেও বোল্টের আশা, দীর্ঘদিন ধরে চলা এই সমস্যা পুরোপুরি কাটিয়ে ওঠা সম্ভব। ডোপিং নিয়ে আপনি কখনোই সুখী হতে পারেন না। এটা ক্রীড়ার জন্য ভালো নয়। তবে অনেক বছর ধরে আমরা ভালো কাজ করছি। এটা পরিষ্কার হচ্ছে এবং আমরা অনেক অ্যাথলেটকে ধরছি। একটা বিষয় বুঝতে হবে যে, আপনি যদি ধোঁকা দেন তাহলে আপনি ধরা পড়বেন। এ বছর মাত্র তিনবার ট্র্যাকে নেমেছেন বোল্ট। যার প্রথম দুটিতে একদমই নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি তিনি, দৌড় শেষ করতে ১০ সেকেন্ডের বেশি সময় নেন। এর মধ্যে গত মাসে তাকে পিঠের চোটে ভুগতে দেখা যায়। তারপরও ৩০ বছর বয়সী এই অ্যাথলেটের দৃঢ় বিশ্বাস, এখনও বিশ্বের দ্রুততম মানব তিনি। শুক্রবার শুরু হতে যাওয়া লন্ডনের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ দিয়ে ক্যারিয়ারে ইতি টানতে যাচ্ছেন বোল্ট। বিদায়ী আসরে ১০০ মিটার ও ৪*১০০ মিটার রিলেতে দৌড়াবেন তিনি। শীর্ষে থেকেই বিদায় নেওয়ার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী অলিম্পিকে আটটি সোনা জয়ী এই অ্যাথলেট। কিছু কারণে আমি আন্ডারডগ। এই কথাটিই আমার দলের সবাই আমাকে বলছে। তাই আরও একবার আমার নিজেকে প্রমাণ করতে হবে। তবে আমি আমার সক্ষমতায় আত্মবিশ্বাসী, সবসময়। গত ২২ জুলাই মোনাকোতে ডায়মন্ড লিগে ৯.৯৫ সেকেন্ডে ১০০ মিটারে সবার আগে দৌড় শেষ করেন বোল্ট। এখান থেকেই লন্ডনে ভালো করার আত্মবিশ্বাস খুঁজে পাচ্ছেন তিনি। পুরুষ ১০০ মিটারের ফাইনাল হবে আগামি ৫ অগাস্ট। আর ১২ অগাস্টের রিলেতেই শেষবারের মতো ট্র্যাকে নামতে পারেন বোল্ট। দুই বছর পর পর হওয়া অ্যাথলেটিক্স বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ্সে মোট ১১টি সোনা জিতেছেন বোল্ট। ২০১১ সালে ১০০ মিটারে ডিসকোয়ালিফাইড হয়েছিলেন তিনি। এটি ছাড়া ২০০৯ থেকে এখন পর্যন্ত বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ্সের প্রতিটি ১০০ মিটার, ২০০ মিটার ও ৪*১০০ মিটার রিলে দৌড়ে হয়েছেন সেরা। এবারের আসরে ২০০ মিটারে অংশ নিচ্ছেন না ১০০ মিটারের মতো এই ইভেন্টেও বিশ্ব রেকর্ডধারী বোল্ট।