দেশে প্রতি বছর হেপাটাইটিসে আক্রান্ত মারা যায় ২০ হাজার মানুষ

প্রতি বছর বাংলাদেশে ২০ হাজার মানুষ হেপাটাইটিস ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। আর এই সংখ্যা প্রতি বছর সারাবিশ্বে ১.৪ মিলিয়ন। হেপাটাইটিস মানুষকে তিলেতিলে শেষ করে দেয়। এটি নীরব ঘাতক।  শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস-২০১৭ উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় রোগ নিয়ন্ত্রণ ইউনিটের পরিচালক ও স্বাস্থ্যসেবা অধিদফতরের (ডিজিএইচএস) লাইন পরিচালক প্রফেসর ডা. সানিয়া তাহমিনা এসব কথা জানান। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ মেডিসিন ক্লাব ও বেক্সিমকো ফার্মা আলোচনা সভার আয়োজন করে। তিনি বলেন, অনেক সময় দেখা যায় একজন রোগী হেপাটাইটিস সিতে আক্রান্ত হয়েছেন। কিন্তু তিনি এর উপসর্গ বুঝতে পারছেন না। পরে দেখা যায় শেষ সময়ে এসে হাসপাতালে ভর্তি হয়েও কোনো লাভ হচ্ছে না। এই রোগে চিকিৎসা ব্যয়বহুল। আমাদের এই বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। আলোচনা অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হেপাটোলজির সহকারী অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহাতাব বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা লক্ষ্যমাত্রা দিয়েছে ২০৩০ সালের মধ্যে সারাবিশ্বকে হেপাটাইটিস মুক্ত করার। এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা বাংলাদেশেও সম্ভব। আমাদের ওষুধ কোম্পানিগুলো হেপাটাইটিস প্রতিরোধক তৈরি করেছে। যা অনেক অল্প টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। তিনি বলেন, আমাদের এখন সবথেকে বেশি প্রয়োজন জনসচেতনতা। এর মাধ্যমে হেপাটাইটিস নিরসন করা সম্ভব। শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজের পরিচালক উত্তম কুমার বড়ুয়ার সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন-বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হেপাটোলজির সহকারী অধ্যাপক ডা. নূরজাহান চৌধুরী ও অভিনয়শিল্পী শমী কায়সার প্রমুখ।