ভালোবাসতে শিখুন ভাগ্যকে

80

সকাল থেকে মৌরির মনটা খুঁতখুঁত করছে। দিনের শুরুতে ‘এক শালিক’ না দেখলেই কি হত না! সারাটা দিন কেমন যায় কে জানে? তবে ‘দুই শালিক’ দেখলেও যে দিনটা ভালো যাবে এমন নিশ্চয়তাই বা কে দিয়েছে!
প্রত্যেকের জীবনেই ভালো ও খারাপ সময় আসে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকার পরও অনেক সময় কাক্সিক্ষত ফলাফল আসে না। তখন আমরা ভাগ্যকে দোষ দেই।
অনেকে ভাগ্য বিশ্বাস করেন না। আবার জীবনের কিছু বিষয় নিয়ন্ত্রণও করা যায় না। সময়ের সঙ্গে ঘটে যাওয়া এরকম নানান ঘটনাকে আমরা ভাগ্য চলে চালিয়ে দেই। তাই বলে হতাশ হয়ে থাকলে তো চলবে না। ভাগ্যকে ভালোবাসতে শেখাটাও দরকার।
জীবনযাপন-বিষয়ক ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যায় ল্যাটিন শব্দ ‘আমর ফাটি’ সম্পর্কে। যার অর্থ ‘ভালোবাসুন নিজের ভাগ্য’।
বলা হয়- নিজের ভাগ্য নিজে গড়া যায়। তবে সবকিছু ঠিকঠাক থাকার পরও মন মতো ফল না পাওয়া অথবা পরিকল্পিত ফল নাও আসতে পারে। দার্শনিকদের মতে, নিজের ভাগ্যকে কেবল মেনে নিও না, তাকে ভালোবাস।
জীবনের প্রতি কোনো বিরক্তি না রাখা: ‘আমর ফাটি’ তত্ত্ব আপনার জীবনে ঘটে যাওয়া ভালো ও খারাপ সব ধরনের অভিজ্ঞতা মেনে নিতে সাহায্য করবে। ফলে কোনো বিরক্তি বা তিক্ততা ছাড়াই জীবন কাটাতে পারবেন।
চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করা: জীবনে যদি কোনো ‘প্রতিযোগিতা’ গ্রহণ করে থাকেন, এর অর্থ হল আপনি জীবন ও ভাগ্যকে ‘হ্যাঁ’ বলার মধ্য দিয়ে ‘আমর ফাটি’ তত্ত্বের নীতি গ্রহণ করছেন। এই তত্ত্ব আপনাকে জীবনের উত্থান পতন মেনে নিতে সাহায্য করবে ও অভ্যন্তরীন বিকাশ ও রূপান্তর সম্পর্কে শিক্ষা দেবে।
আধ্যাত্মবাদীরা মনে করেন যে, এই তত্ত্ব সুখী হতে সাহায্য করে। জীবন যখন কোনো কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি এসে দাঁড়ায় তখন খুব স্বাভাবিক ও শান্ত ভাবেই তা মোকাবেলা করা উচিত।
নিজের শক্তি ও ক্ষমতার উপর ভরসা রেখে যে কোনো খারাপ পরিস্থিতির মোকাবিলা করুন।
জেফ আর নুর্ডিরমির নামের একজন ডাচ ব্যক্তি যিনি ‘রোটারডাম বম্বিং’ নিয়ে লিখেছেন।
তিনি নেদারল্যান্ডে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কথা স্মরণ করে বলেন, “জীবনে যা পাচ্ছেন তা গ্রহণ করুন এতে আপনি জীবনের সর্বোচ্চ পর্যায়ে যেতে পারবেন। যেখানে আপনি ও আপনার জীবনের মধ্যে কোনো রকমের দ্বন্দ্ব থাকবে না। খুব বেশি আকাক্সক্ষা কোনো কিছুই পরিবর্তন করতে পারেনা। তাই যদি কোনো সমস্যার মুখোমুখি হয়ে থাকেন তাহলে সেটা সমাধানের চেষ্টা করুন।
ভাগ্যের সঙ্গে যুদ্ধ করবেন না: জীবনে ভালো সময়, খারাপ সময় আসবেই। যখন আমরা চাইলেও নিজেদের খারাপ সময় পরিবর্তন করতে পারি না তখন ভাগ্যের সঙ্গে যুদ্ধ না করে বরং যা হচ্ছে তা হতে দিন।
নিজের অভিজ্ঞতার প্রতি সমবেদনা: ‘আমর ফাটি’ তত্ত্ব গ্রহণ করার মাধ্যমে, নিজের মনকে আত্মসমালোচনা থেকে মুক্ত রাখতে পারবেন। এটা আপনার জীবনকে শান্ত রাখবে ও কষ্ট দূরে রাখবে।
যে কোনো ঘটনাকেই মেনে নিন এবং নিজের শান্তির জন্য দয়া ও সমবেদনা অপরিহার্য।