হারের বৃত্ত ভাঙা জয় পাকিস্তানের

103

মিসবাহ-উল-হক, ইউনুস খানের বিদায়ী সিরিজের শুরুতে দারুণ এক জয় পেয়েছে পাকিস্তান। ইয়াসির শাহর নৈপুণ্যে জ্যামাইকা টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে অতিথিরা। স্যাবিনা পার্কে পঞ্চম ও শেষ দিনের এই জয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে গেছে পাকিস্তান। টানা ছয় হারের পর টেস্টে জয়ে ফিরেছে মিসবাহর দল। আগের দিন ৪ উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচ পুরোপুরি পাকিস্তানের মুঠোয় নিয়ে এসেছিলেন ইয়াসির। টেস্টে নবমবারের মতো পাঁচ উইকেট পাওয়া এই লেগ স্পিনার এদিন তিন পেসারের কাছ থেকে পেয়েছেন প্রয়োজনীয় সহায়তা। দ্বিতীয় ইনিংসে তেমন একটা প্রতিরোধ গড়তে পারেননি ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যানরা তাই লড়াইয়ের পুঁজিও পায়নি স্বাগতিকরা। ৪ উইকেটে ৯৩ রান নিয়ে গত মঙ্গলবার খেলা শুরু করা ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় ইনিংস এদিন স্থায়ী হয় মোটে ২৪.৪ ওভার। ৫৯ রান যোগ করে দলটি গুটিয়ে যায় ১৫২ রানে। রোস্টন চেইস অপরাজিত ছিলেন ১৬ রানে। সঙ্গ পাননি কারোর। প্রতিরোধ গড়ে মাটি কামড়ে উইকেটে থাকার প্রবণতা দেখা যায়নি অন্য ব্যাটসম্যানদের মাঝে। দিনের শুরুতে ভিশাল সিংকে বোল্ড করে প্রথম সাফল্য এনে দেন মোহাম্মদ আমির। বল ছেড়ে দিয়ে বোল্ড হন অভিষিক্ত মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। তিন বলের মধ্যে দেবেন্দ্র বিশু ও শেন ডাওরিচকে আউট করে স্বাগতিকদের বিপদ বাড়ান অভিষিক্ত পেসার মোহাম্মদ আব্বাস। বাজে এক শটে স্লিপে ইউনুসের হাতে ধরা পড়েন নাইটওয়াচম্যান বিশু। ইনসুইংয়ে পরাস্ত হয়ে শূন্য রানে ফিরেন উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান ডাওরিচ। প্রথম ইনিংসে প্রতিরোধ গড়া চেইস ও জেসন হোল্ডারের ব্যাটে ছিল লড়াইয়ের আভাস। সেটাকে এবার বেশি বড় হতে দেননি ওয়াহাব রিয়াজ। তার বলে উইকেটরক্ষক সরফরাজ আহমেদের গ্লাভসবন্দি হন স্বাগতিক অধিনায়ক। চার বলের মধ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের শেষ দুই উইকেট তুলে নেন ইয়াসির। আলজেরি জোসেফ এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়ার পর তুলে মারতে গিয়ে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। ৬৩ রানে ৬ উকেট নিয়ে পাকিস্তানের সেরা বোলার ইয়াসির। সব মিলিয়ে ৮ উইকেট নিয়ে তিনিই জেতেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার। ৩২ রানের ছোটো লক্ষ্য তাড়ায় শুরুটা ভালো হয়নি পাকিস্তানের। ৭ রানের মধ্যে ফিরেন দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান। গ্যাব্রিয়েলের বলে উইকেটরক্ষকের গ্লাভসবন্দি হন আহমেদ শেহজাদ। জোসেফের বলে ব্যাটের কানায় লেগে বোল্ড হন আজহার আলি। লাঞ্চের পর বিদায় নেন ইউনুসও। বিশুর সেই ওভারেই দলকে দারুণ জয় এনে দেন মিসবাহ। প্রথম বলটি দেখেশুনে খেলেন অধিনায়ক। পরের দুটি উড়িয়ে পাঠান সীমানার বাইরে। ৩ বলে মিসবাহ অপরাজিত থাকেন ১২ রানে। আগামী রোববার ব্রিজটাউনে শুরু হবে দ্বিতীয় টেস্ট।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংস: ২৮৬
পাকিস্তান ১ম ইনিংস: ৪০৭
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২য় ইনিংস: ৫২.৪ ওভারে ১৫২ (ব্র্যাথওয়েট ১৪, পাওয়েল ৪৯, হেটমায়ার ২০, হোপ ০, বিশু ১৮, ভিশাল ৯, চেইস ১৬*, ডাওরিচ ০, হোল্ডার ১৪, জোসেফ ১, গ্যাব্রিয়েল ০; আমির ১/২০, আব্বাস ২/৩৫, ইয়াসির ৬/৬৩, ওয়াহাব ১/২৯)
পাকিস্তান: ১০.৫ ওভারে ৩৬/৩ (আজহার ১, শেহজাদ ৬; বাবর ৯*, ইউনুস ৬, মিসবাহ ১২*; গ্যাব্রিয়েল ১/৭, জোসেফ ১/৬, বিশু ১/১৯, হোল্ডার ০/২)
ফল: পাকিস্তান ৭ উইকেটে জয়ী
ম্যান অব দ্য ম্যাচ: ইয়াসির শাহ।