বাবরি মসজিদ : আদভানিসহ বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ

অযোধ্যায় ষোড়শ শতকের বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ঘটনায় দেশটির ক্ষমতাসীন দল বিজেপির নেতা এল কে আদভানি ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী উমা ভারতিসহ বেশ কয়েজন জ্যেষ্ঠ নেতার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছে ভারতের সর্বোচ্চ আদালত। গতকাল বুধবার দেওয়া রায়ে বিচারকরা এই মামলার বিচার দুই বছরের মধ্যে শেষ করতে প্রতিদিন শুনানির আদেশ দিয়েছেন, জানিয়েছে এনডিটিভি। ৮৯ বছর বয়সী আদভানি ও বিজেপির অপর জ্যেষ্ঠ নেতা মুরলি মনোহর জোশির বিরুদ্ধে উত্তেজক বক্তব্য দিয়ে লাখ লাখ ডানপন্থি স্বেচ্ছাসেবক বা করসেবককে মসজিদটি ভাঙার উস্কানি দেয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। ১৯৯২ সালে ভারতের উগ্র ডানপন্থি করসেবকরা বাবরি মসজিদ ভেঙে গুড়িয়ে দেয়। উত্তর প্রদেশের রায় বেরেলির আদালতে বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে মসজিদ ধ্বংসে ষড়যন্ত্র করার মামলাটি দায়ের করা হয়েছিল। অপরদিকে লক্ষ্ণৌর আদালতে করা মসজিদ ধ্বংসের অপর একটি মামলারও মুখোমুখি হচ্ছেন বিজেপি নেতারা। মসজিদ ধ্বংস করার ঘটনায় প্রায় ২০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে। এই দুটি মামলার শুনানি একসঙ্গে শেষ করে দুই বছরের মধ্যে নিষ্পত্তি করার আদেশ দিয়েছে আদালত। ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্ত ব্যুরো (সিবিআই) জানিয়েছে, যেদিন মসজিদটি ধ্বংস করা হয় ওই দিন নিকটবর্তী একটি স্থানে একটি মঞ্চে বিজেপি নেতারা বক্তৃতা দিচ্ছিলেন এমন প্রমাণ তাদের কাছে আছে। মসজিদ ধ্বংস করার প্রাণঘাতী পরিকল্পনার অংশ হিসেবেই ওই সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছিল বলে অভিযোগ করেছে সিবিআই। সংস্থাটি জানিয়েছে, মসজিদ ধ্বংসের আগের দিন রাতে আদভানি ও বিজেপির অন্যান্য নেতারা বৈঠক করে মসজিদটি ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, তাই মসজিদ ভাঙার বিষয়টি তাৎক্ষণিক কোনো ঘটনা ছিল না, এটি পূর্বপরিকল্পিত ও ইচ্ছাকৃতভাবে ঘটানো হয়েছিল। বাবরি মসজিদ ভাঙার পর হিন্দু ও মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে ভারতজুড়ে ছড়িয়ে পড়া দাঙ্গায় প্রায় দুই হাজার মানুষ নিহত হয়।