নির্বাচনে না এলে নিবন্ধন হারিয়ে বিএনপির অবস্থা হবে জাসদের মতো : হাছান

hasanপরবর্তী নির্বাচনে অংশ না নিলে বিএনপির অবস্থা ‘জাসদের মতো’ হবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ নেতা হাছান মাহমুদ।  শনিবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটশন মিলনায়তনে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক সভায় তিনি এই মন্তব্য করেন। নিজেদের জোট শরিক জাসদের দিকে বিএনপি নেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার মাধ্যমে তিনি যে ক্ষয়িষ্ণু হওয়ার কথা বোঝাচ্ছেন, তা স্পষ্ট। আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান বলেন, গত নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে বিএনপি আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছিল। বর্তমান সময়ে বিএনপির নেতাদের বক্তব্যে শোনা যাচ্ছে ওঁরা আবার ফাঁসিতে ঝুলবেন, অর্থাৎ নির্বাচনে যাবেন না। আগামী জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করলে বিএনপির অবস্থা মুসলিম লীগ কিংবা জাসদের মতো হবে। আমরা এমন বিএনপি দেখতে চাই না। শক্তিশালী বিএনপির সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় যেতে চাই। দশম সংসদ নির্বাচন বয়কটের পর বিএনপি একাদশ সংসদ নির্বাচনের সময় ‘সহায়ক’ সরকারের দাবি তুলেছে। দলীয় সরকারের অধীনে ভোটে না যাওয়ার হুমকি রয়েছে তাদের; যদিও পরপর দুটি নির্বাচন বর্জন করলে নিবন্ধন বাতিলের ঝুঁকি রয়েছে। হাছান বলেন, বিএনপি নাকি শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যাবে না। বিএনপির নেতাদের বলব সংবিধানটা ভালো করে পড়েন। নির্বাচন হয় নির্বাচন কমিশনের অধীনে। নির্বাচনকালীন সময়ে সরকারের আমলা থেকে শুরু করে সমস্ত কিছু নির্বাচন কমিশনের অধীনে থাকে। কারও আবদার রক্ষার জন্য সংবিধানের এক চুলও ব্যত্যয় হবে না। নির্বাচনকালীন সময়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার বহাল থাকবে। কারও জন্য নির্বাচন বসে থাকবে না। অতীতেও বসে থাকেনি, ভবিষ্যতেও বসে থাকবে না। বিএনপি যত কথাই বলুক, নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষার্থে নির্বাচনে আসবেই, বলেন আওয়ামী লীগ নেতা। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে সভায় কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ বক্তব্য রাখেন।