সিলেটে চোরাবালীতে ডুবে যাওয়া চাঁপাইনবাবগঞ্জের ইসাহাক ইব্রাহিম শশীর দাফন সম্পন্ন

113

16472931_1858145647760245_5953476553956675704_nসিলেটে মঙ্গলবার বিকালে ডুবে মৃত্যুবরণ করা চাঁপাইনবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ মোহাম্মদ ইব্রাহিম হোসেনের বড় ছেলে ইসাহাক ইব্রাহিম শশীর দাফন বুধবার রাতে সম্পন্ন হয়েছে। রাত সাড়ে আটটায় নামাজে জানাযা শেষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার রাজারামপুর কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।
এর আগে ইসহাকের লাশ বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের কোর্ট এরিয়ায় নানা বিশিষ্ট সমাজসেবক জোহরুল ইসলামের বাড়িতে নিয়ে আসা হয়।
ইসাহাক ইব্রাহিম শশী কিশোরগঞ্জের জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের ৫ম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। মঙ্গলবার জৈন্তাপুর উপজেলার লালখাল পর্যটন স্পটে ৫ বন্ধু মিলে নৌকা ভ্রমণে যান।
এই সময় হাসান মোহাম্মদ সাঈদ নামে একজন লালখাল মিস্ত্রীঘাটের জলরাশিতে নামেন। এ সময় হাসান মোহাম্মদ সাঈদ চোরাবালিতে তলিয়ে যেতে থাকলে বন্ধুকে বাঁচাতে এগিয়ে যান ইসাহাক ইব্রাহিম শশী। কিন্তু এক পর্যায়ে দুই বন্ধুই চোরাবালীতে তলিয়ে যান। এ সময় সাথে থাকা অন্যবন্ধুদের চিৎকারে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে জৈন্তাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাদের মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে মঙ্গলবার রাতে চাঁপাইনবাবগঞ্জের এ মেধাবী শিক্ষার্থীর অকাল মৃত্যুর খবরে তার বাড়িসহ এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। বাবা মা প্রতিবেশী স্বজন বন্ধু সকলেই যেন এ অকাল মৃত্যু মেনে নিতে পারছেন না।