শিগগিরই কর্মী নেবে মালয়েশিয়া

75

kawsar-azam-1বাংলাদেশ থেকে কর্মী নেওয়ার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করে মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী রিচার্ড রায়ট আনাক জায়েম বলেছেন, খুব শিগগিরই তারা বাংলাদেশ থেকে কর্মী নেবে। প্রাথমিক পর্যায়ে নির্মাণ শ্রমিক, প্লান্টেশন ও ম্যানুফেকচার খাতে কর্মী নেওয়া হবে। রাজধানীর একটি হোটেলে মঙ্গলবার দুপুরে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি’র সঙ্গে অনুষ্ঠিত দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে এসব কথা জানান মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মস্থান মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ঢাকার একটি হোটেলে মঙ্গলবার দুপুরে মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী রিচার্ড রায়ট আনাক জায়েমের সঙ্গে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে মিলিত হন। বৈঠকে মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণ সম্পর্কিত বিষয়ে সার্বিক আলোচনা হয়। আলোচনা শেষে তারা জানান খুব শিগগিরই বাংলাদেশ থেকে নির্মাণ শ্রমিক, প্লান্টেশন ও ম্যানুফেকচার খাতে মালয়েশিয়ায় কর্মী গমন শুরু হবে। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো পূর্বের রিক্রুটিং এজেন্সির তালিকার মাধ্যমে কর্মী প্রেরণ নিশ্চিত করার জন্য বৈঠকে আলোচনা হয়। সরকার নির্ধারিত ব্যয়ে মালয়েশিয়া সরকার ও বাংলাদেশ সরকার কর্মী গমনাগমনের বিষয়ে একমত প্রকাশ করেন। বৈঠকে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেন, মালয়েশিয়ায় জনশক্তি রফতানিতে দালালচক্র নির্মূল করার জন্য আমরা বদ্ধপরিকর। মালয়েশিয়া বাংলাদেশের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ শ্রমবাজার। দক্ষ ও আধাদক্ষ কর্মী প্রেরণের জন্য বাংলাদেশ প্রস্তুত আছে। ইতোমধ্যে কর্মী প্রেরণের কৌশল নিয়ে উভয়পক্ষ একাধিকবার বৈঠক করেছে। জনশক্তি রফতানিতে গুটিকয়েক রিক্রুটিং এজেন্সিকে সুযোগ না দিয়ে পূর্বে প্রেরিত ৭৪৫টি রিক্রুটিং এজেন্সি হতে অভিজ্ঞ ও স্বনামধন্য রিক্রুটিং এজেন্সির মাধ্যমে কর্মী প্রেরণ নিশ্চিত করা হবে। এতে করে অভিবাসন ব্যয় হ্রাস পাবে এবং সরকার নির্ধারিত অভিবাসন ব্যয়ে কর্মী প্রেরণ করা যাবে। বৈঠক শেষে মালয়েশিয়ার প্রতিনিধিদলের সম্মানে মধ্যাহ্নভোজের আয়োজন করা হয় এবং মন্ত্রীদ্বয়ের মধ্যে স্মারক বিনিময় হয়। মালয়েশিয়ার ৯ সদস্য বিশিষ্ট প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী রিচার্ড রায়ট আনাক জায়েম।