কুষ্ঠু রোগ নির্মূলে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থাগুলোকে জোরালো ভূমিকা রাখার আহবান স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

fস্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম কুষ্ঠুু রোগ নির্মূলে জনসচেতনতা বাড়িয়ে সমন্বিত সেবা কার্যক্রম হাতে নিতে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থাগুলোকে জোরালো ভূমিকা রাখার আহবান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, কুষ্ঠ রোগীকে অবহেলা না করে পাশে থেকে সেবা দেয়ার জন্য জনগণকে সচেতন করে তুলতে হবে। তিনি মঙ্গলবার ঢাকায় কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে ‘নেগলেকটেড ট্রপিক্যাল ডিজিজেস এন্ড লেপ্রোসী রিসার্চ’ শীর্ষক পরামর্শমূলক সম্মেলনের উদ্বোধনকালে একথা বলেন। দি লেপ্রোসী মিশন ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ এই সম্মেলনের আয়োজন করে। লেপ্রোসী মিশনের কান্ট্রি ডিরেক্টর সলোমান সুমন হালদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ বক্তৃতা করেন। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপর চাপ কমাতে অন্যান্য হাসপাতালগুলোতে যাওয়ার জন্য জনগণকে উদ্ধুদ্ধ করতে হবে। তিনি বলেন, রাজধানীতে ঢামেক হাসপাতালের মতো সোহরাওয়ার্দী, কুর্মিটোলা, মুগদা হাসপাতালেও আইসিইউ সমৃদ্ধ একই সেবা সরকার নিশ্চিত করেছে। তিনি বলেন, পাশাপাশি নিউরোসায়েন্স, হƒদরোগ ইনস্টিটিউট, কিডনী হাসপাতাল, নাক-কান-গলা ইনস্টিটিউট, চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটসহ বেশ কয়েকটি বিশেষায়িত হাসপাতাল সরকার চালু করেছে যেখানে অত্যাধুনিক মানের যন্ত্রপাতি স্থাপন করা হয়েছে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা সেখানে নিয়মিত চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন। এই হাসপাতালগুলোতে এখন আন্তর্জাতিক মানের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। প্রতিটি হাসপাতালে জনগণ আধুনিক চিকিৎসা পাবে, এই তথ্য সকলের কাছে পৌঁছে দিতে সংশ্লিষ্টদেরকে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য মন্ত্রী আহ্বান জানান। তিনি বলেন, অতীতে দারিদ্র্যের কারণে দেশে বিভিন্ন ধরনের সংক্রামক রোগের প্রকোপ দেখা দিত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে আজ দারিদ্র্যের হার অনেক কমে গেছে। পাশাপাশি স্বাস্থ্যখাতে সরকারের নিরলস প্রচেষ্টার ফলে বাংলাদেশ পোলিও, ধনুস্টংকার, যক্ষ¥াসহ অনেক রোগকে পরাজিত করেছে। বিশের বিভিন্ন দেশে ভয়াবহ নানান রোগ দেখা দিলেও সরকারের সময়োচিত পদক্ষেপের ফলে সে সব রোগ থেকে দেশের জনগণকে রক্ষা করা সম্ভব হয়েছে। সেদিন বেশি দূরে নয়, যেদিন বাংলাদেশ থেকে কুষ্ঠ রোগ নির্মূল সম্ভব হবে। মন্ত্রী বলেন, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে কুষ্ঠ রোগীদের জন্য পর্যাপ্ত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার উদ্যোগ নেয়া হবে। পরে সচিবালয়ে স্বাস্থ্যখাতের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় সভাপতিত্বকালে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, তৃণমূল মানুষের বিশেষ করে দরিদ্র মানুষের জন্য স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে সরকারের পদক্ষেপগুলোর সফল বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্টদেরকে তৎপর থাকতে হবে। জনগণের দোরগোড়ায় চিকিৎসা সেবা পৌঁছে দিতে কোনো রকমের গাফিলতি ও অনিয়ম সহ্য করা হবে না বলেও তিনি এসময় জানান। সভায় অন্যান্যের মাধ্যে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্যসচিব মোঃ সিরাজুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদসহ মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।