তানোর-চৌবাড়িয়া সড়কে যানবাহন চলাচলে দুর্ভোগ

gourbangla logoতানোর-চৌবাড়িয়া সড়কের রাস্তাটি দীর্ঘদিন কোন মেরামত না করায় যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। ফলে এই রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী যাত্রীদেরকে প্রতিনিয়ত চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ, এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শি সুত্রে জানা, তানোর-চৌবাড়িয় সড়কটি বিল কুমারী বিলের ধার ঘেষে তৈরি রাস্তার লব্যাতলা ব্রীজের উত্তর পার্শে, গুবির পাড়ার পূর্ব পার্শের প্রায় পুরোটারই পিচ উঠে গেছে এবং বেশ কয়েকটি স্থানে রাস্তাটি বসে গিয়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এই রাস্তাটি এখন যাত্রীদের মরন ফাঁদে পরিনত হয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই সেখানে ঘটছে ছোট বড় দূর্ঘটনা। সরেজমিনে গত বৃহস্পতিবার ওই রাস্তায় গিয়ে দেখা গেছে, তানোর থেকে চৌবাড়িয়া যাওয়ার একমাত্র  সড়কের প্রায় পুরোটাই ভাঙ্গা। বেশ কয়েকটি স্থানে দু’ধারের মাটি সরে গিয়ে সৃষ্টি হওয়া বড় বড় গর্তে যানবাহন আটকে পড়ছে। ফলে প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী শতাধীক ভ্যান, ভুটভুটি, ট্রলি, ব্যাটারী চালিত অটো, সিএনজি অটো, ট্রাক, বাস, চালকসহ যাত্রীদেরকে পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ। এব্যাপারে অটো চালক মিলন বলেন, এই রাস্তার পুরোটাই ভেঙ্গে গেছে এর মধ্যে বেশ কয়েকটি স্থানে বড় বড় গভীর গর্ত হওয়ায় প্রায় সময় অটো ও ভারি ট্রাক উল্টে যাওয়ার পাশাপাশি দীর্ঘ সময় ধরে গর্তে আটকা পড়ে থাকছে। রাস্তাটি দীর্ঘদিন মেরামত না করায় ভেঙ্গে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ায় খুব সাবধানে অটো ও ভুটভুটিসহ যানবাহন চালানোর ফলে সময় বেশী লাগছে। এব্যাপারে বগুড়ার এক ট্রাক চালক সোলাইমান হোসেন বলেন, এই রাস্তা দিয়ে খুব সহজেই চাপাই নবাবগঞ্জ যাওয়া যায়, কিন্তু রাস্তাটি ভেঙ্গে পড়ায় প্রায় সময় দূর্ঘটনা ঘটছে, এবং গর্তে আটকা পড়ছে ট্রাক, এই রাস্তাটি মেরামত করা জরুরী। মটরসাইকেল চালক নির্মল কুমার বলেন, দীর্ঘদিন ধরে গুরুত্বপূর্ন এই রাস্তাটি ভাঙ্গা অবস্থায় রয়েছে, মেরামত না করে কর্তৃপক্ষ গত বর্ষা মৌসুমে বড় বড় গর্তে কয়েকটি ইট ফেলেছিল, কিন্তু তা কাজে আসেনী, এই রাস্তাটি দ্রুত স্থায়ী ভাবে মেরামত করা বিশেষ প্রয়োজন।
এব্যাপারে তানোর উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, তানোর-চৌবাড়িয়া  সড়কের পুরো রাস্তা মেরামতের জন্য অল্প দিনের মধ্যে টেন্ডার আহবান করা হবে এবং আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই পুরো রাস্তা চলাচলের উপযোগী হয়ে যাবে।