মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের দালালদের প্রতিশোধেই জেলহত্যা : প্রধানমন্ত্রী

111

captureপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের শক্তি যাতে ক্ষমতায় আসতে না পারে সে জন্যই জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করা হয়। পচাঁত্তরের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা এবং ৩ নভেম্বর জেলখানায় জাতীয় চার নেতাকে হত্যার ঘটনা মুক্তিযুদ্ধে বাঙালির বিজয়ের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের দালালদের চরম প্রতিশোধ ছিল। বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর খামারবাড়িতে জেল হত্যা দিবসের স্মরণ সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এসব হত্যাকা- ঘটানো হয়েছে যাতে মুক্তিযুদ্ধে চেতনার ধারায় বাংলাদেশ আর এগোতে না পারে। যাতে আওয়ামী লীগ আর কোনোদিন ক্ষমতায় আসতে না পারে। এসব হত্যার পর পাকিস্তানের দালালরা ক্ষমতায় এসেছে। যারা মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি সেনাদের পথ চিনিয়ে গ্রামে গ্রামে নিয়ে গেছে, এ দেশের মা-বোনদের তাদের হাতে তুলে দিয়েছে।’ তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতা হত্যার পর ২১ বছর এই বাংলাদেশ শোষিত হয়েছে, নির্যাতিত হয়েছে। সমগ্র বাংলাদেশ ছিল একটা কারাগার। যখন থেকে জিয়া ক্ষমতায় এসেছে, দেশে প্রতি রাতে কারফিউ ছিল। কারফিউ গণতন্ত্র দিয়েছিল জিয়া। নির্বাচনকে কালো অধ্যায় করেছিলেন তিনি। হ্যাঁ, না ভোটে কোনো গণতন্ত্র রাখেননি। শেখ হাসিনা বলেন, খুনি মোশতাক বেঈমানি করেছে, সে মীরজাফর। সেই খুনি মোশতাক ক্ষমতায় এসে জিয়াউর রহমানকে সেনাপ্রধান বানিয়েছে। পঁচাত্তরের আত্মস্বীকৃত খুনিরা বিবিসির সঙ্গে সাক্ষাৎকারে বলেছে, জিয়ার সঙ্গে তাদের যোগাযোগ ছিল, ইশারা দিয়েছিল। দেশ স্বাধীনের পর অনেক দালাল পাকিস্তানে চলে যায়। সেসব যুদ্ধাপরাধীর ভোটের অধিকার পর্যন্ত ছিল না। জিয়াউর রহমান তাদের আইন ভঙ্গ করে এ দেশে আসার সুযোগ করে দেয়। জামায়াতকে এ দেশে রাজনীতি করার সুযোগ দেয়। বিএনপি ক্ষমতায় এসে দেশের কোনো উন্নতি করেনি জানিয়ে তিনি বলেন, বিএনপির আমলে পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। দেশের উন্নয়ন তো এ জন্যই হয়নি।প্রধানমন্ত্রী বলেন, জিয়াউর রহমান মারা যাবার পর ভাঙ্গা সুটকেস ও ছেড়া গেঞ্জি ছাড়া কিছু ছিল না-এমন কথা শুনতে শুনতে কান ঝালাপালা হয়ে গেছে। অথচ পরে দেখা গেল সেই সময়ের ১০ লাখ টাকার ব্যাংক একাউন্ট। খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে শেখ হাসিনা বলেন, উনি (খালেদা জিয়া) অপরাধ নাই করতো তাহলে তিনি কোর্টে হাজিরা দিতে ভয় পান কেন? অপরাধ করেছেন তাই জেলে যাবার ভয়ে তিনি কোর্টে হাজির হন না। কালো টাকা সাদা করে, এতিমের টাকা চুরি করে, বিদেশে টাকা পাচার করে তার খালেদার পালাই পালাই ভাব। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে উন্নয়নের রাজনীতি শুরু করে। আর তারই ফলে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোড মডেল।