শেষ ম্যাচে বৃষ্টি চায় না বাংলাদেশ

06-বড় ধরনের অঘটন না ঘটলে টি২০ বিশ্বকাপের সুপার টেন পর্বে বাংলাদেশের খেলা প্রায় নিশ্চিত। তার আগে রোববার প্রাথমিক রাউন্ডের শেষ ম্যাচে ওমানের বিরুদ্ধে জিততে হবে বাংলাদেশকে। তবে এই ম্যাচের আগে শঙ্কা জাগছে বিরূপ আবহাওয়া নিয়ে। কারণ ধর্মশালায় এই ম্যাচের সময়ও নাকি প্রবল বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে বৃষ্টি হলেও সমস্যা নেই বাংলাদেশ দলের। কারণ আয়ারল্যান্ডের মতো ওমানের সঙ্গে ম্যাচটিও যদি পরিত্যক্ত হয়, তাহলে নেট রান রেটে সুপার টেন পর্বে চলে যাবে বাংলাদেশ। তবে বাংলাদেশ শিবির মনে প্রাণে চাইছে, শেষ ম্যাচটি খেলতে। তার চেয়ে বড় চাওয়া, এই ম্যাচে বৃষ্টি যেন ঝামেলা তৈরি না করে।
টি২০ ফরম্যাটে বৃষ্টি মানেই ঝামেলা। খেলা হলেও ম্যাচের দৈর্ঘ্য কমে আসে। যাতে অভ্যস্ত নয় বাংলাদেশ। এশিয়া কাপের ফাইনাল যেমন ভুগিয়েছে বাংলাদেশকে। ভারতের বিরুদ্ধে ২০ ওভারের ম্যাচ কমে এসে দাঁড়িয়েছিল ১৪ ওভারে। বাংলাদেশ ভালো ব্যাট করলেও শেষ পর্যন্ত শিরোপা জেতে ভারত। সর্বশেষ আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচটি ছিল ১২ ওভারের। তবে এবার অন্য বাংলাদেশের দেখা মেলে। যেখানে তামিম ঝড়ে বাংলাদেশ করেছিল ৮ ওভারে ৯৪ রান। যা ছিল বিস্ময়কর। কিন্তু সব ম্যাচেই এমন শুরুটা পাওয়া দুষ্কর।
আর তাই বাছাই পর্বের শেষ ম্যাচে ওমানের বিরুদ্ধে খেলার প্রবল ইচ্ছা বাংলাদেশের। শুধু তাই নয়, আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধেও ম্যাচ খেলার ইচ্ছা ছিল মাশরাফিদের। কিন্তু বৃষ্টির কারণে তা হয়নি। এ বিষয়ে মাশরাফি বলেন, ‘আমরা আসলে বৃষ্টি চাইনি। এশিয়া কাপের ফাইনালে এই বৃষ্টি আমাদের বিরক্ত করেছে। এই ধরনের ম্যাচে বৃষ্টি হলে সব সময় কঠিন হয়ে যায় মাইন্ড সেটা আপ করা। আমরা এতো ম্যাচ খেলি না যে, খুব তাড়াতাড়ি এগুলো মানিয়ে নিতে পারবো। আমরা সব সময় চাই ২০ ওভারের ম্যাচটি খেলতে এসেছি, ওটাই যেন খেলতে পারি। আমি এই মুহূর্তে আশা করছি পরবর্তী ম্যাচটি যেন ২০ ওভারের হয়। আমরা যেন ভালো একটি ম্যাচ খেলতে পারি।’
এ গ্রুপে ইতোমধ্যে এক হার ও এক ম্যাচ পরিত্যক্তের কারণে বিদায় ঘন্টা বেজেছে ইউরোপের দুই দেশ আয়ারল্যান্ড ও নেদারল্যান্ডসের। সমান তিন পয়েন্ট নিয়ে রেসে টিকে আছে ওমান ও বাংলাদেশ। রোববার অলিখিত ফাইনালে যারা জিতবে, তারাই চলে যাবে সুপার টেন পর্বে। তবে এই ওমানের বিরুদ্ধে পূর্বে খেলার কোন অভিজ্ঞতা নেই বাংলাদেশের। তবে আইরিশদের বিরুদ্ধে ওমানের জয়ের ম্যাচটিই পর্যবেক্ষণ করছে বাংলাদেশ দল। তবে মাশরাফির মতে, পেশাদার ক্রিকেটার হিসাবে সব ম্যাচই সমান।
ওমান দল সম্পর্কে মাশরাফি বলেন, ‘প্রথমতো আমার নেদারল্যান্ডস ও আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ খেলেছি। কিন্তু ওমানের সঙ্গে কোন খেলা হয়নি। আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে পুরো ম্যাচটাই আমার দেখেছি। ওরা দল হিসেবে অনেক ভালো। অবশ্যই টি-২০তে। ২-১টি ভালো ওভার অবশ্যই সবকিছু পরিবর্তন করে দেয়। আমরা যদি পেশাদার হয়ে খেলতে পারি, সমস্যা নাও হতে পারে। অবশ্যই আমাদের সেরা খেলাটাই খেলতে হবে। অন্য সব বড় দলগুলোর সঙ্গে আমরা যেভাবে খেলি, সেভাবেই ওদের (ওমান) বিপক্ষে পরিকল্পনা করছি।’