ইলেকট্রিক শকে দূর হবে পুরুষের বন্ধ্যাত্ব

05-

সামান্য ইলেকট্রিক শকই বাড়াতে পারে শুক্রাণু উৎপাদন ও তাদের গতি। পজিটিভ ইলেকট্রিক্যাল চার্জ অর্থাৎ ধনাত্মক আয়ন শুক্রাণুর ঘনত্ব বাড়ায়, তা শুক্রনালীতে নির্গত হতে সাহায্য করে, বীর্যতেও বাড়ে শুক্রাণুর পরিমাণ। পুরুষের বন্ধ্যাত্ব রুখে দিতে পারে এই আবিষ্কার। আবিস্কৃত এই জিনিসটি মোবাইল ফোনের আকৃতির। আর সহজেই ব্যবহার করা যাবে এটি।
ইসরায়েলের শিবা মেডিক্যাল কলেজের গবেষকরা জানান, পশুদের উপর পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে, এই যন্ত্র শুক্রথলি স্ক্রোটাম এর কাছে রাখলে যে বৈদ্যুতিক ঘাত বেরোয়, এতে বন্ধ্যাত্ব সেরে যায়। চরম পর্যায়ে পৌঁছে না গেলে এটি ব্যবহৃত হয় না। বন্ধ্যা পুরুষের শুক্রাণুর গতিবিধির উপর নজর রাখা যায়। বন্ধ্যাত্বের ক্ষেত্রে হয় কম শুক্রাণু, নয় শুক্রাণুর চলনে মূলত সমস্যা দেখা যায়।
নতুন এই ইলেকট্রিক্যাল স্টিমুলেশন পদ্ধতিতে (মাইক্রো-৪০০ ম্যাট্রিক্স) যে রকম ধনাত্মক আয়ন বা পজিটিভ ইলেকট্রিক্যাল চার্জ সহযোগে বৈদ্যুতিক শক দেওয়া হয়, তাতে হালকা শিরশিরানি হয়। কিন্তু একেবারে ব্যথা লাগে না। ইলেকট্রোড-সহ যন্ত্রটিকে স্ক্রোটামে স্থাপন করা হয়।
গবেষকদের মত, প্রযুক্তিটি একেবারেই নিরাপদ। যদিও অতিরিক্ত উচ্চমাত্রার শক ক্ষতি করতে পারে, তবে যন্ত্রটিতে সে অসুবিধা নেই। শুক্রাণু গণনা করা নেই, এমন দশজন পুরুষ রোজ টানা এক বছর এটি ব্যবহার করতে পারেন। তারা প্রাকৃতিক উপায়েই সন্তান জন্ম দিতে সক্ষম হবেন।