পাকিস্তানে বাজারে বিস্ফোরণ নিহত ২৩

76

1. pakistan

পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় উপজাতি এলাকায় একটি জনাকীর্ণ বাজারে বোমা বিস্ফোরণে অন্তত ২৩ জন নিহত এবং ৫০ জন আহত হয়েছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন সিনিয়ার কর্মকর্তা জানান, রোববার বোমা বিস্ফোরণে অন্ত ২৩ জন নিহত ও আরো ৫০ জনের বেশি আহত হয়েছে। এদের মধ্যে ১৫ জনের বেশি ব্যক্তির অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। তিনি জানান, একটি মোমা অপসারণ স্কোয়াড ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে এবং তারা বিস্ফোরণের ধরণ নিরূপণের চেষ্টা কবছেন।মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। এখন পর্যন্ত কেউ ওই বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করেনি। প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফসহ ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তারা এ ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন।

কুররাম জেলার রাজনৈতিক প্রশাসক অমজাদ আলি খান ঘটনা ও নিহতের সংখ্যা নিশ্চিত করেছেন। আতদের জেলা সদর হাসপাতালের নেয়া হয়েছে। সেখানখার একজন চিকিৎসক বলেন, আহতদের অধিকাংশের অবস্থা আশংকাজনক এবং নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে। কর্মকর্তারা জানান, আফগানিস্তান সীমান্তবর্তী কুররাম উপত্যকার রাজধানী পারাচিনার শহরের একটি কাপড়ের বাজারে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। হাসপাতাল সূত্রের বরাত দিয়ে পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডন জানায়, আহতদের মধ্যে ১৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ওই বিস্ফোরণের ঘটনা আত্মঘাতী হামলা কি না, তা পরিষ্কার নয়। গতকাল বিস্ফোরণস্থলটি ঘিরে রেখেছে নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষ। তারা হামলার ধরনটি বোঝার চেষ্টা করছে। কোনো জঙ্গি সংগঠন এখনো বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করেনি। রিমোট কন্ট্রোলের মাধ্যমে দূর থেকে এই বিস্ফোরণ ঘটানো হয় বলে প্রাথমিক তদন্তের পর জানানো হয়েছে। বোমা বিস্ফোরণের সময় বাজারটি লোকে পরিপূর্ণ ছিল এবং তারা কেনাকাটায় ব্যস্ত ছিলেন।

তবে এর আগে সংবাদ মাধ্যমগুলো জানিয়েছে, সেটি দূর নিয়ন্ত্রিত বোমা ছিল নাকি কোনো এক ব্যক্তি হামলা চালিয়েছিল সে ব্যাপারে তারা নিশ্চিত হতে পারিনি। নিরাপত্তা বাহিনী এলাকাটি ঘিরে রেখেছে এবং ঘটনার তদন্ত চলছে। কুররামের রাজনৈতিক প্রশাসনিক কর্মকর্তা আমজাদ আলী খান বলেন, ‘বিস্ফোরণে ২৩ জন নিহত হয়েছে। আহতদের পেশোয়ারের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’ ঘটনাস্থল থেকে দুই সন্দেহভাজনকে আটক করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে নিরাপত্তা সূত্র।কুররামের সঙ্গে আফগানিস্তানে সীমান্ত রয়েছে। অঞ্চলটি সন্ত্রাসবাদ প্রভাবিত।