স্মার্ট কার্ড বিতরণের লক্ষ্য ডিসেম্বর

স্মার্ট কার্ড বিতরণের লক্ষ্য ডিসেম্বর

উন্নতমানের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বা স্মার্ট কার্ড বিতরণের লক্ষ্যে আগামী ডিসেম্বরকেই টার্গেট করে এগোচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ইতোমধ্যে কার্ড ছাপানোর কাজও শুরু করেছে ইসির জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগ। সূত্রগুলো জানিয়েছে, আমেরিকা থেকে কেনা দশটি মেশিনে পুরোদমে উৎপাদনে গেছে নির্বাচন কমিশন। একটি মেশিন মাসে পাঁচ লাখ স্মার্ট কার্ড ছাপানোর ক্ষমতা রাখে। সে হিসেবে প্রতি মাসে প্রায় ৫০ লাখ ভোটারের স্মার্ট এনআইডি ছাপানো হবে। ইসির পরিকল্পনা অনুযায়ী, ২০১৪ সালের নতুন ৪৭ লাখ ভোটারকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে স্মার্ট কার্ড দেওয়া হবে। আর এ কার্যক্রমের উদ্বোধন হবে রাজধানী ঢাকায়। এজন্য ঢাকার ভোটারদেরও নতুন ভোটারদের সঙ্গেই উন্নতমানের ওই কার্ড দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী অথবা রাষ্ট্রপতি কার্ড বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন বলে আশা প্রকাশ করেছে ইসি। এনআইডি অনুবিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ঢাকায় বর্তমানে ৪৪ লাখ ভোটার রয়েছেন। সে হিসেবে ঢাকার ভোটার ও নতুন ভোটার মিলিয়ে মোট ৯১ লাখ নাগরিককে প্রথম ধাপে স্মার্ট কার্ড সরবরাহ করবে ইসি। সূত্রগুলো জানিয়েছে, অক্টোবর মাসে পরীক্ষামূলকভাবে কার্ড উৎপাদন শুরু করে ইসি। নভেম্বরে পুরোদমে উৎপাদন চলছে। ইসির নির্দেশনা অনুযায়ী ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহের আগেই ওই ৯১ লাখ এনআইডি ছাপানোর কাজ শেষ হবে। এক্ষেত্রে ডিসেম্বরেই স্মার্ট কার্ড বিতরণ শুরু হতে পারে। এনআইডি শাখার মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জামান মো. সালেহ উদ্দীন বলেন, ঢাকার ৪৪ লাখ ভোটার এবং ২০১৪ সালের ৪৭ লাখ নতুন ভোটারকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে স্মার্ট কার্ড দেওয়া হবে। তবে ওই ৪৭ লাখের মধ্যে দুর্গম এলাকার ভোটাররা অগ্রাধিকার পাবেন। এক্ষেত্রে ৯১ লাখ কার্ড ছাপানোর শেষের দিকে কমিশন বৈঠকে আলোচনার মাধ্যমে বিতরণের বিষয়টি চূড়ান্ত করা হবে। তাই বিতরণের সঠিক তারিখ এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, জানুয়ারির মধ্যেই বিতরণ হবে একথাও বলা যাবে না। কারণ, ডিসেম্বরই তো শেষ হয়নি। আর ডিসেম্বরের মধ্যেই দেওয়া হবে, এটাও ঠিক না। কেননা, এক-দুই সপ্তাহ পিছিয়েও যেতে পারে। তাই সিদ্ধান্ত হোক, তারপরেই জানানো হবে কখন নাগরিকরা স্মার্ট কার্ড হাতে পারেন। তবে শিগগিরই এটা নাগরিকদের হাতে তুলে দেওয়া হবে। দেশে বর্তমানে ৯ কোটি ৬২ লাখ ভোটার রয়েছেন। সব ভোটারের স্মার্ট কার্ড ছাপাতে প্রায় ২০ মাস সময় লাগবে ইসির। সুলতানুজ্জামান মো. সালেহ উদ্দীন বলেন, ৯১ লাখ নাগরিকের কার্ড বিতরণের সময় বাকিদের কার্ড ছাপানোর কাজ চলবে। পরবর্তীতে যা ধাপে ধাপে দেশের সব নাগরিকদের মাঝে বিতরণ করা হবে। তিনি বলেন, বর্তমানে জনগণকে স্মার্ট কার্ড সম্পর্কে সচেতন করতে ব্যাপক প্রচারণা চালানো হচ্ছে। এতে তারা স্মার্ট কার্ডের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে জানতে পারছেন। একইসঙ্গে সঠিক তথ্য দিয়ে ভোটার হওয়ার মাধ্যমে নির্ভুল এনআইডি নেওয়ার বিষয়েও নাগরিকদের উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। জানা গেছে, স্মার্ট কার্ড বিতরণের সময় নাগরিকদের আরো কিছু তথ্য নেবে ইসি। একই সঙ্গে দশ আঙ্গুলের ছাপ এবং চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবিও নেওয়া হবে। এজন্য এলাকায় এলাকায় ক্যাম্প করা হবে। নাগরিকরা সেই ক্যাম্পে এসে স্মার্ট কার্ড নিয়ে যাবেন।