ঈদকে সামনে রেখে ব্যাস্ত পোশাক কারিগররা

119

ঈদকে সামনে রেখে ব্যাস্ত পোশাক কারিগররা

আসন্ন ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শহরের ৩টি মার্কেটের প্রায় সাড়ে ৩শ দর্জি কারিগর। শহরের অভিজাত মার্কেট বলে খ্যাত নিউ মার্কেট, ক্লাব সুপার মার্কেট ও পুরাতনবাজারের দর্জি দোকান গুলোতে কারিগরদের ব্যস্ততার চিত্র দেখা গেছে। তবে এখনও ভালোভাবে জমে উঠেনি। এবার মজুরী নিয়েও কোন সমস্যা নেই বলে দর্জি মালিক ও কারিগর সমিতির নেতারা জানিয়েছেন।
নিউ মার্কেটের নিউ আলীশান টেইলার্সের মালিক রাশেদ আলী জানান, তার দোকানে অনেক আগে থেকেই কাজের চাপ রয়েছে। তবে ছেলেদের কাজের চেয়ে মেয়েদের কাজই বেশি। এবার তার দোকানে নেট কাপড়ের উপর নকশার কাজ করে বৃহৎ মাপের ঘের দেয়া মেয়েদের জিপসী নামের পোষাক তৈরী হচ্ছে সব থেকে বেশি। এবার তিনি ২শটি জিপসী তৈরী করবেন বলে জানান। তিনি জানান, প্রতিটি জিপসী তৈরীতে মুজরী ধরা হচ্ছে ৬৫০ টাকা থেকে ১২শ’ টাকা। একই মার্কেটের ইওর চয়েসের মালিক সাদেকুল ইসলামসহ আরো কয়েকজন দর্জি মালিক জানান গত বারের চেয়ে এবার কাজের চাপ বেশি রয়েছে। তবে কোন কোন দর্জি দোকানে এখনো ভালোভাবে কাজ শুরু না হলেও সপ্তাহখানের মধ্যে ব্যস্ততা বেড়ে যাবে বলে অনেকেই জানান।
ক্লাব সুপার মার্কেটের নূর লেডিজ টেইলার্সের মালিক মো. তোফায়েল জানান, গতবছর এসময় পোষাক তৈরীর চাপ সৃষ্টি হয়েছিল কিন্তু এবার একটু কম। তবে আর কদিনবাদেই কাজের চাপ বেড়ে যাবে বলে তিনি জানান। তার দোকানে নারী কারিগরসহ কয়েকজন সেলাইয়ের কাজ করেন। এবার মেয়েদের থ্রিপিস, লেহাঙ্গা, জিপসী, বোরখাসহ অন্যান্য পোষাক তৈরী করা হয়। একই মার্কেটের বাংলা টেইলার্সের খাইরুল ইসলাম জানান, দিন যত যাবে কাজের চাপ তত বাড়বে। গর্জিয়াস টেইলার্সের মৌসুমী জানান, কাজ চলছে ভালোই। আইডিয়াল টেইলার্সের কারিগর মো. তৌফিক জানান, এবার কাজের চাপ কম।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা দর্জি কারিগর সমিতির সভাপতি সাদেকুল ইসলাম জানান, সমিতিভূক্ত ২২০জনসহ নিউ মার্কেট, ক্লাব সুপার মার্কেট ও পুরাতন বাজারসহ দর্জি কারিগর রয়েছেন প্রায় সাড়ে ৩শ’জন। ঈদকে সামনে রেখে তারা এখন ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন পোষাক তৈরীর কাজে। তিনি বলেন অন্যান্য বছর কারিগরদে মজুরী নিয়ে ঝামেলা হলেও এবার গত মার্চ মাসেই মজুরী পুন:নির্ধারণ করা হয়। ফলে এবার তাদের জন্য মজুরী ধরা হয়েছে ফুল প্যান্ট ৯৫ টাকা, জিন্স প্যান্ট ৯৮ টাকা, শার্ট ৬২ টাকা,  সাফারি সেট ১৬০ টাকা, কাবলি সেট ৭৫ টাকা,পাঞ্জাবি ৬৩ টাকা, বোরখা ৭০ টাকা, কোর্ট ৫২০ টাকা। চাঁপাইনবাবগঞ্জ দর্জি মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রবিউল হাবিব ডলার জানান, পুরাতন বাজরে ১ জনসহ নিউমার্কেট ও ক্লাবসুপার মার্কেটে দর্জি মালিক রয়েছেন ৪৫টি। এর মধ্যে এবার নারী দর্জি মালিক রয়েছেন ৩জন। গতবার রাজনৈতিক অস্থিরতায় ঈদ উপলক্ষে পোষাক তৈরীর কাজ ভালো না হলেও এবার ভালো হবে। তিনি বলেন, বোরখাঘর, নিউ আলীশন, ইওর চয়েসসহ বেশ কিছু দর্জি দোকানে কাজের চাপ আগে থেকেই বেশি থাকে। তবে ঈদকে সামনে রেখে এবার ইতোমধ্যেই কাজ আসতে শুরু করেছে। কারিগরদের মজুরী নিয়েও কোন সমস্যা নেই বলে তিনি জানান।
এইসব মার্কেট ঘুরে জানা গেছে, ঈদ উল ফিতরকে সামনে রেখে তৈরী পোষাকের পাশাপাশি বহু সংখ্যক ক্রেতা ছেলে মেয়েদের জন্য দর্জিকে দিয়ে পোষাক তৈরী করে নেন। একারণে রমজানের শুরু থেকেই এইসব দর্জি দোকান গুলোতে কারিগররা পোষাক তৈরীতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। এবারো তার ব্যতিক্রম হয়নি। কিন্তু এখনো ভালোভাবে জমে উঠেনি। তবে ১০ রমজানের পর থেকে কাজের চাপ সৃষ্টি হবে এমনটাই আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। এ দিকে অন্যান্য বছর কারিগরদের মজুরী নিয়ে দর্জি মালিকদের মধ্যে মতপার্থক্য ছিল। কিন্তু এবার তা আগেই মালিক-কারিগর সমিতির নেতৃবৃন্দ নিরসন করেছেন গত মার্চ মাসে। ফলে এবার সেই সমস্যা নেই বলে জানিয়েছেন দর্জি কারিগর, মালিক ও কারিগর নেতৃবৃন্দ।