কুরিয়ার সার্ভিসের আমের প্যাকেটে পিস্তলের গুলি

194

কুরিয়ার সার্ভিসের আমের প্যাকেটে পিস্তলের গুলি

চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আমের ঝুড়িতে কৌশলে দেশের বিভিন্ন স্থানে পাচার হচ্ছে আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি। শুক্রবার রাতে সেরকম একটি চালান আটক করে র‌্যাব সদস্যরা। আমের প্যাকেটের মধ্যে পাওয়া যায় পিস্তলের ৪৫ রাউন্ড গুলি। তবে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে আমের চালানের মধ্যে অস্ত্র, মাদক পরিবহন রোধে গেয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করেছে বলে দাবি করছে র‌্যাব।
শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে র‌্যাব-৫ এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পে পিস্তলের গুলি উদ্ধারের বিষয়ে প্রেস বিফিং এর আয়োজন করা হয়।
ক্যাম্প  কমান্ডার মেজর মুহাম্মদ শফিকুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার রাতে রানীহাটি এলাকায় শিবগঞ্জ থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের দিকে আসা একটি ভটভটিতে তল্লাসী চালায় র‌্যাব সদস্যরা।
এসময় ভটভটিতে একটি আমের প্যাকেট থেকে ৪৫ রাউন্ড পিস্তলের গুলি উদ্ধার করা হয়। এস আর পরিবহন নামে একটি কুরিয়ার সার্ভিসের শিবগঞ্জ শাখার মাধ্যমে ওই আমের প্যাকেট ঢাকায় পাঠানোর জন্য বুকিং করা হয়েছিল।
অস্ত্র বা মাদক দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানোর মাধ্যম হিসাবে কুরিয়ার সার্ভিস ব্যবহৃত হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে, র‌্যাবের এ কর্মকর্তা বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সীমান্তবর্তী এলাকা, এখানকার কেউ কেউ এই ধরনের অবৈধ কাজের সাথে জড়িত থাকতে পারে, কোন কুরিয়ার সার্ভিস যে এর সাথে জড়িত নেই এটা নিশ্চিত করে বলা যাবে না। কারন আমরা আজকে যে মালামাল গুলো ধরেছি সেটি একটি কুরিয়ার সার্ভিসের বুকিংকৃত মাল।
বিশেষ করে আমের এ মৌসুমে আমের ঝুড়ি বা প্যাকেটে করে মাদক ও অস্ত্র গুলি যাতে দেশের বিভিন্ন স্থানে পরিবহন করতে না পারে সেই লক্ষ্যে র‌্যাব অতিরিক্ত সতর্কতা হিসাবে গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করেছে। তিনি বলেন,আমাদের চেষ্টা অব্যাহত আছে, কোন কুরিয়ার সার্ভিস  জড়িত থাকলে তাকে অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে। কুরিয়ার সার্ভিসের সাথে সংস্লিষ্টদের আরো সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, মালামাল পাঠানোর সময় যিনি মাল ‍ৃপাঠাচ্ছেন তার পূর্ণ ঠিকানা লিপিবদ্ধ করতে হবে। তিনি বলেন, শুক্রবার রাতের অভিযানে আমরা যে আমের প্যাকেটের মধ্য থেকে গুলিগুলো পেয়েছি, সেটিতে কোন নাম ঠিকানা নেই শুধু একটি মোবাইল নাম্বার দেয়া আছে। গুলিসহ আটককৃতদের সদর থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা করেছে র‌্যাব।