চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিশ্ব তামাক মুক্ত দিবস পালিত

86

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিশ্ব তামাক মুক্ত দিবস পালিত

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২০০৪ সালের তথ্য অনুযায়ি বাংলাদেশে তামাক জনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে প্রতিবছর ৫৭ হাজারের বেশি মানুষ মারা যায়। প্রতিদিন গড়ে মারা যায় ১৫৬ জন। ধুমপানসহ তামাক জনিত কারণে ক্যান্সার, যক্ষ্মা, সিওপিডি, ব্রঙ্কাইটিস, পায়ের পচন বা বার্জার রোগে আক্রান্ত হয়ে মানুষ মৃত্যুবরণ করে। চাঁপাইনবাবগঞ্জে রবিবার বিশ্ব তামাক মুক্ত দিবসে এসব তথ্য উঠে আসে।
দিবসটি উপলক্ষ্যে জেলা টাস্কফোর্স কমিটি, তামাক মুক্ত কোয়ালিশন ও বিসিডিপি র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করে। সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে র‌্যালিটি বের হয়ে শহরে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে শেষ হয়। র‌্যালি শেষে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ  জাহাঙ্গীর কবীর। এতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মুখলেসুর রহমান আকন্দ, সিভিল সার্জন অফিসের মেডিক্যাল অফিসার ডা. এমএ মাতিন প্রমুখ। কর্মসূচিতে সিভিল সার্জন অফিসসহ বিভিন্ন এনজিও অংশগ্রহণ করে।
নওগাঁ: “তামাকজাত পণ্যের অবৈধ ব্যাণিজ্য বন্ধ কর“ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে র‌্যালি ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে নওগাঁয় বিশ্ব তামাক মুক্ত দিবস পালিত হয়েছে।  রবিবার সকালে সিভিল সার্জন অফিস চত্বর থেকে বর্ণ্যাঢ্য র‌্যালিটি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় সেখানে গিয়ে শেষ হয়। পরে নার্স ট্রেনিং ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে ডা. জাহিদ নজরুল চৌধূরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান চৌধূরী, ডা. আব্দুল লতিফ, সাবেক সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা আনিছুর রহমান, অগ্রযাত্রার নির্বাহী পরিচালক রায়হান আলম, রানীর প্রধান নির্বাহী ফজলুল হক খান, আবেগের নির্বাহী পরিচালক নাজমুল হুদা,প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। বক্তারা তামাক ও তামাকজাত দ্রব্যের সুফল ও কুফল নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।