হাসপাতালে চিকিৎসক নেই তাই হয়নি ময়না তদন্ত

90

চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটে স্ত্রীর হাতে শুক্রবার রাতে খুন হওয়া দিলজান আলীর (৫০) লাশ শনিবার দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে এসে পৌঁছালেও চিকিৎসক না থাকার কারনে ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়নি। ফলে শনিবার দিনভর স্বজনরা শুধুই অপেক্ষা করেছে। অপেক্ষার প্রহর শুধুই বেড়েছে, দুপুর গড়িয়ে হয়েছে বিকেল, বিকেল শেষে সন্ধা নেমেছে তবুও অপেক্ষার প্রহর যেন শেষ হয়না। অবশেষে র্ফিরে গেছেন তারা। আগামীকাল দিলজান আলীর ময়না তদন্ত হবে বলে তাদের জানিয়ে দিয়েছে হাসপাতাল কতৃপক্ষ।  এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে দিলজান আলীর ছোট ভাই আব্দুস সবুর জানান,‘‘ লাশ নিয়ে হামরা ২ টার দিকে হাসপাতালে আসি। এরপর এই করছে সেই করছে বলে হামরাকে বসিয়া র‌্যাখাছে। আশায় আশায় বস্যা থ্যাকা রাত সাড়ে ৭ টার দিকে পুলিশটা খহিল ডাক্তার নাই, কাল হবে ময়নাতদন্ত। হ্যামরা ৩ জন ভোলাহাট থেকে এসেছিলাম, কিন্তু এখন চাঁপাইনবাবগঞ্জের একটা মেসে আছি।’’ তিনি আরো বলেন লাশ নিয়ে আসার সময় একটা ভটভটি ২ হাজার টাকায় ভাড়া করেছিলাম, তাকে বেশি টাকা দিতে চাইলাম কিন্তু সে রাতে আর থাকল না, আবার কালকের জন্য ২ হাজার টাকা দিয়ে একটা পিকআপ ভাড়া করেছি। এভাবে মানুষকে হয়রানি করার কোন মানে হয়না।

Capture
হাসপাতালের একটি সূত্র জানিয়েছে, হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ড. শফিকুল ইসলামকে জেলার নাচোল উপজেলায় বদলি করা হলে, এনিয়ে হাসপাতালে চিকিসকদের মধ্যে একটা ঝামেলা সৃষ্টি হয়। তার পরিপেক্ষিতে একজন আরেক জনের কাঁধে শুধু দ্বায়িত্ব ছেড়ে দেয়ার চেষ্টায় ব্যস্ত থাকায় খুন হওয়া দিলজান আলীর ময়নাতদন্ত সম্পূন্ন করতে পারেনি কতৃপক্ষ।
এ বিষয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জের সিভিল সার্জন ড. আলাউদ্দীন জানান, সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক আরএমওকে বদলি করায় এ সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। তিনি আরো জানান, আগামীকাল এই ময়নাতদন্ত সম্পূন্ন করা হবে। ড. সফিকুলকে আমি ব্যাক্তিগত ভাবে অনুরোধ করেছি যাতে তিনি কাল এসে এ ময়নাতদন্ত সম্পূন্ন করেন।
উল্লেখ্য, শুক্রবার রাতে পারিবারিক দ্বন্দ্বের জের ধরে ভালাহাট উপজেলার মুশরিভুজা বারইপাড়ায় স্ত্রী কিকি বেগমের হাতে খুন হন দিলজান।
ভোলাহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মহসিন আলী জানান, পারিবারিক দ্বন্দ্বের জের ধরে শুক্রবার রাতের কোন এক সময় স্বামী দিলজানের সঙ্গে স্ত্রী ফিকি বেগমের ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে স্বামীর অন্ডকোষ চেপে ধরলে দিলজান মারা যায়। সংবাদ পাওয়ার পর ভোলাহাট থানা পুলিশ ঘটনাস্থল সকালে থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন। এ ঘটনায় ভোলাহাট থানায় হত্যা মামলার পর স্ত্রী ফিকি বেগমকে গ্রেফতার করে জেলা হাজতে পাঠানো হয়েছে।