৪ হাজারের মাইলফলকে কোহলি

2

ভারতীয় সমর্থকদের চিৎকারে অ্যাডিলেইড ওভালের গ্যালারি উত্তাল ম্যাচ শুরুর বেশ আগে থেকেই। বিরাট কোহলি ক্রিজে যাওয়ার সময় দর্শকের গর্জন যেন কাঁপিয়ে দিল চারপাশ। পরের সময়টায় দারুণ কিছু শটে দর্শকদের আরও উল্লাসের উপলক্ষ তিনি এনে দিলেন। গুরুত্বপূর্ণ এক ইনিংসের পথে পা রাখলেন দারুণ এক মাইলফলকেও। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সেমি-ফাইনালে বৃহস্পতিবার ফিফটির পথে ৪ হাজার ক্যারিয়ার রান পূর্ণ করেন কোহলি। ২০ ওভারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এই অর্জনে নাম লেখানো প্রথম ব্যাটসম্যান তিনিই। মাইলফলকের ৪২ রান দূরে থেকে এই ম্যাচ শুরু করেন ভারতীয় গ্রেট। লোকেশ রাহুলের বিদায়ে উইকেটে যান তিনি দ্বিতীয় ওভারেই। পঞ্চদশ ওভারে লিয়াম লিভিংস্টোনকে বাউন্ডারি মেরে স্পর্শ করেন ৪ হাজারের সীমানা। পরে তিনি আউট হন ৪০ বলে ৫০ রান করে। ক্যারিয়ার রান এখন ১০৭ ইনিংসে ৫২.৭৩ গড়ে ৪ হাজার ৮। রোহিত শর্মা দুইয়ে আছেন ১৪০ ইনিংসে ৩ হাজার ৮৫৩ রান করে।

এই সংস্করণে ৩ হাজার রানেও কোহলি ছিলেন প্রথম। এই ফিফটিতে রঙিন পোশাকের আইসিসি আসরের সেমি-ফাইনালে কোহলির দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের ধারাও অব্যাহত রইল। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে ৮টি সেমি-ফাইনাল খেলে তার পঞ্চম ফিফটি এটি। ২০১৩ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে করেছিলেন ৬৪ বলে অপরাজিত ৫৮, ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৪৪ বলে অপরাজিত ৭২। ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শেষ চারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলেন ৪৭ বলে ৮৯ রানের অপরাজিত ইনিংস। এরপর ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে ওঠার পথে বাংলাদেশের বিপক্ষে অপরাজিত থাকেন ৭৮ বলে ৯৬ রান করে। আগের চার ফিফটিতে অপরাজিত থাকলেও এবার আউট হন ৫০ রানে। সেমি-ফাইনালে তিনি ব্যর্থ কেবল ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপে (৯ রান), ২০১৫ ওয়ানডে বিশ্বকাপে (১ রান) ও ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপে (১ রান)