৩ ডিসেম্বর মুক্তি পাচ্ছে ‘বলি’

0

আগামী ৩ ডিসেম্বর অনলাইন এন্টারটেইনমেন্ট প্ল্যাটফর্ম হইচই-তে মুক্তি পেতে যাচ্ছে চঞ্চল চৌধুরী অভিনীত ওয়েব সিরিজ ‘বলি’। ইতোমধ্যে হইচই-এর নিজস্ব প্ল্যাটফর্ম, সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ও ইউটিউব চ্যানেলে একযোগে রিলিজ করা হয়েছে ‘বলি’র ট্রেলার। শঙ্খ দাসগুপ্তের পরিচালনায় নির্মিত সিরিজটির কেন্দ্রীয় চরিত্রগুলোতে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, সোহেল মন্ডল, সালাহউদ্দিন লাভলু, ইরেশ জাকের, সোহানা সাবা, সাফা কবির, লুৎফর রহমান জর্জ, জিয়াউল হক পলাশ, কাজী রোকসানা রুমা এবং নাসির উদ্দিন খান। সিরিজটির কাহিনি লিখেছেন নাসিফ ফারুক আমিন এবং চিত্রনাট্য লিখেছেন জাহিন ফারুক আমিন। চিত্র-নির্দেশনা করেছেন তাহসিন রহমান এবং সঙ্গীত নির্দেশনায় ছিলেন ইমন চৌধুরী।

প্রথমেই বলে নেই সোহরাব রুস্তম এই দুটি চরিত্র আমাদের প্রত্যেকের কাছেই ভীষণ পরিচিত। আর এই বিখ্যাত প্রাচীন লোকোকাহিনীর ছায়া অবলম্বনে বাংলাদেশের তরুণ পরিচালক শঙ্খ দাশগুপ্তের হাত ধরে নির্মিত হচ্ছে বলি ওয়েব সিরিজ। এই সিরিজে সোহরাব এর ভূমিকায় থাকছেন বাংলাদেশের বিখ্যাত অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী এবং রুস্তমের ভূমিকায় রয়েছেন অভিনেতা সোহেল মন্ডল। এই ওয়েব সিরিজের গল্পটি এরকম – সমুদ্রের ধারের এক চরের নাম ছেড়াদিয়া। সেই সেই জায়গার ওপর সরকারের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আর সেই চরের শাসন চলে বন্দুকের গুলি দিয়ে। ওয়েব সিরিজ এর শুটিং হয়েছে কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে। এই ওয়েব সিরিজে ছোট চুল আর ছোট ডান চোখ ওয়ালা এক ভিন্ন রুপে দেখা যাবে চঞ্চল চৌধুরী কে। ট্রেলারের শুরুই হয়েছে চঞ্চল চৌধুরী এক অনবদ্য কন্ঠ দিয়ে। “ছেঁড়াদিয়া, নীল সাগরের পাড়ে ধুধু প্রান্তর। এই প্রান্তরের দখল যার হাতে তারই কেল্লাফতে।” অর্থাৎ ছেড়াদিয়ার বাপ হলেন চঞ্চল চৌধুরী।

ছেঁড়াদিয়া – বঙ্গোপসাগরের বিচ্ছিন্ন এক দ্বীপ। এই দ্বীপের দখল যার হাতে, তারই কেল্লা ফতে। কারণ এই দ্বীপ চিংড়ি আর লবণের বাণিজ্যকেন্দ্র। টাকা আর জমি দখলের কারবার যেখানে, সেখানে প্রভাব বিস্তারের রাজনীতি থাকবেই। ছেঁড়াদিয়াতেও আছে। এখানে টক্কর চলে দুই পরিবারের মধ্যে। বংশ পরম্পরায় সেই পরিবারের যে হাল ধরে তার নাম হয় – কোম্পানি। আর কোম্পানিদের প্রভাব বজায় রাখে – বলি, বল প্রয়োগে জমি দখলে রাখাই যাদের কাজ। এই কাজে তাদের বাঁধা দেয়ার কেউ নেই। ছেঁড়াদিয়ায় নেই কোন আইনের শাসন। ওখানে বন্দুকের নল থেকেই বের হয় ক্ষমতা। সেই ক্ষমতার টক্করে কে বাঁচে, কে মরে যায় সেটা নিয়েই বলি ওয়েব সিরিজের কাহিনি আবর্তিত হয়েছে।

সিরিজটির কাহিনি লিখেছেন নাসিফ ফারুক আমিন এবং চিত্রনাট্য লিখেছেন জাহিন ফারুক আমিন। চিত্র-নির্দেশনা করেছেন তাহসিন রহমান এবং সঙ্গীত নির্দেশনায় ছিলেন ইমন চৌধুরী। এছাড়াও ইতোমধ্যে দর্শকদের নজর কেড়েছে ওয়েব সিরিজটির অন্যতম চরিত্র নিজাম। এই নিজাম খুব রুথলেস। ক্ষমতাধর ব্যক্তির সঙ্গে বসবাস করে সে। ও্যবে সিরিজে নিজামের চরিত্রে অভিনয় করেছেন কাজল আরেফিন অমি’র ‘ব্যালেচর পয়েন্ট’ নাটকের কাবিলা খ্যাত পলাশ। গোঁফসহ পোড় খাওয়া চেহারায় পলাশের এই লুক ও চরিত্রটি আগ্রহের শীর্ষে দর্শকের। শঙ্খ দাসগুপ্ত বিজ্ঞাপনের জগতে একটি পরিচিত নাম। ওয়েবে এটাই তাঁর প্রথম কাজ। হইচই এ তাঁর পরিচালনায় নির্মিত ওয়েব সিরিজ বলির রিলিজ হওয়া নিয়ে উচ্ছ্বসিত শঙ্খ দাসগুপ্ত বলেন, “পরীক্ষার ফল বের হওয়ার আগে যেমন অনুভূতি হয়, সেরকম হচ্ছে।

টিজার রিলিজ হওয়ার পর দর্শকদের প্রতিক্রিয়া দেখে আমি সত্যিই অনুপ্রাণিত। আশা করি দর্শকেরা আমাদের পাশেই থাকবেন। এত দিনের পরিশ্রম অবশেষে আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে। রিলিজের পর থেকে বলি দর্শকদের প্রোপার্টি। সিরিজটি সবার ভাল লাগলেই আমাদের পরিশ্রম সার্থক।” বলির রিলিজ নিয়ে হইচই বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর সাকিব আর খান বলেন, “হইচই সিজন ফাইভের অ্যানাউন্সমেন্টের সময় আমাদের স্লোগান ছিল – নতুন গল্প হয়ে যাক।

আমরা চেয়েছি আমাদের কন্টেন্ট হবে ট্রেন্ডসেটার, আমরা নতুন ধরনের গল্প বলবো। ভিন্ন স্বাদের, ভাল মানের কন্টেন্ট সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে থাকা বাংলা ভাষায় কথা বলা মানুষদের কাছে পৌঁছে দেয়ার অব্যাহত প্রচেষ্টার ফসলই হচ্ছে বলি। সিরিজটি সবাই পছন্দ করবেন বলে আমি বিশ্বাস করি।” উল্লেখ্য, হইচই গত সেপ্টেম্বরে তাদের ৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে বাংলাদেশ থেকে ৫ টি অরিজিনাল সিরিজের ঘোষণা দিয়েছিল। বলি এই ৫ টি সিরিজের একটি। গত ১৫ নভেম্বর সিরিজটির টিজার রিলিজ হয়। টিজারেই ছিল অনেকগুলো চমক।