২ কোটি রুপিতে দিল্লিতে মুস্তাফিজ

6

প্রথমবার আইপিএল অভিযানে ডেভিড ওয়ার্নারকে অধিনায়ক হিসেবে পেয়েছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। এবার নতুন দলে এই অস্ট্রেলিয়ান ওপেনারকে সতীর্থ হিসেবে পাচ্ছেন বাংলাদেশের বাঁহাতি পেসার। ২ কোটি রুপিতে মুস্তাফিজকে দলে নিয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস। বেঙ্গালুরুতে গতকাল শনিবার আইপিএলের নিলামে ভিত্তিমূল্যেই মুস্তাফিজকে পেয়ে যায় দিল্লি। গত আসরের নিলামে ভিত্তিমূল্য ১ কোটি রুপিতে তাকে দলে নিয়েছিল রাজস্থান রয়্যালস। আইপিএলে দিল্লির কোচ অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি রিকি পন্টিং। শনিবার নিলাম থেকে ওয়ার্নারের পাশাপাশি তারা দলে নেয় অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার মিচেল মার্শ, ভারতীয় পেসার শার্দুল ঠাকুর, চায়নাম্যান বোলার কুলদিপ যাদবকে। এছাড়াও আগের বছরের দল থেকে ধরে রাখে তারা পৃথ্বী শ, রিশাভ পান্ত, আকসার প্যাটেল ও দক্ষিণ আফ্রিকান ফাস্ট বোলার আনরিক নরকিয়াকে। মুস্কাফিজের আগে নিলামে নাম উঠলেও এ দিন কোনো দল পাননি বাংলাদেশের আরেক তারকা সাকিব আল হাসান।

কোনো দল আগ্রহী হলে দ্বিতীয় দিনে তার নাম উঠতে পারে আবার। আইপিএলের গত আসরে রাজস্থানের হয়ে ১৪ ম্যাচ খেলে ১৪ উইকেট নিয়েছিলেন মুস্তাফিজ, ওভারপ্রতি প্রায় সাড়ে ৮ করে রান নিয়ে। তার আইপিএল অভিষেক ২০১৬ আসর দিয়ে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে চমক জাগানিয়া আবির্ভাবের পর তাকে ১ কোটি ৪০ লাখ রুপিতে দলে নেয় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। প্রথম আইপিএলেই দারুণ সাড়া জাগান তিনি। ওভারপ্রতি সাতের কম রান দিয়ে ১৭ উইকেট নিয়ে জিতে নেন ‘ইমার্জিং প্লেয়ার অব দা টুর্নামেন্ট’ স্বীকৃতি। দলের শিরোপা জয়ে রাখেন বড় ভূমিকা।

পরের আসরে হায়দরাবাদের হয়েই একটি ম্যাচ খেলে তিনি রয়ে যান উইকেটশূন্য। পরে তাকে ছেড়ে দেয় তারা। ২০১৮ আইপিএলের নিলামে তাকে ২ কোটি ২০ লাখ রুপিতে দলে নেয় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। আইপিএলের সফলতম ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে ৭ ম্যাচে তার উইকেট ছিল ৭টি, ওভারপ্রতি রান দিয়েছিলেন সাড়ে ৭ করে। এরপর দুই আসর বিরতি দিয়ে আবার আইপিএলে খেলেন তিনি গতবার। চলতি বিপিএলে মুস্তাফিজ আছেন দারুণ ফর্মে। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি তিনি এখনও পর্যন্ত, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে ৮ ম্যাচে নিয়েছেন ১৭ উইকেট। ওভারপ্রতি রান দিয়েছেন ৬.৭২ করে। বাংলাদেশ থেকে সাকিব-মুস্তাফিজ ছাড়াও নিলামে নাম আছে লিটন কুমার দাস, তাসকিন আহমেদ ও শরিফুল ইসলামের।