১৯ বছর পর পদত্যাগ করছেন চেলসির চেয়ারম্যান

2

বদল এসেছে ক্লাবের মালিকানায়। এবার চেলসির চেয়ারম্যান হিসেবে শেষ হচ্ছে ব্রুস বাকের দীর্ঘ পথচলাও। ১৯ বছর দায়িত্ব পালনের পর পদটি থেকে সরে দাঁড়াচ্ছেন এই আমেরিকান আইনজীবী। প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবটি সোমবার এক বিবৃতিতে জানায়, এই মাসের শেষে পদত্যাগ করবেন ৭৬ বছর বয়সী বাক। তবে সিনিয়র উপদেষ্টা হিসেবে ক্লাবটিতে থাকবেন তিনি। ২০০৩ সালে রোমান আব্রামোভিচ চেলসির মালিকানা কেনার পর বাক চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পেয়েছিলেন। ইউক্রেইনে রাশিয়ার আগ্রাসনের পর চাপের মুখে আব্রামোভিচ ক্লাব বিক্রির সিদ্ধান্ত নিলে গত মে মাসে তা কিনে নেয় যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ী টড বোয়েলি ও তার নেতৃত্বাধানী একটি কনসোর্টিয়াম। নতুন মালিকানায়ও বাক চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব চালিয়ে যাবেন বলে ধারণা করা হচ্ছিল। তবে ক্লাবের বিবৃতিতে তিনি বললেন, সরে দাঁড়ানোর এটাই সঠিক সময়।

“এখনই পদত্যাগ করার সঠিক সময় এবং আমাদের যে শক্তিশালী ভিত রয়েছে তার ওপর গড়ে উঠুক নতুন মালিকানা। চেলসির উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য মালিকদের পরিকল্পনা রয়েছে। আমাদের অবিশ্বাস্য সব কর্মী, খেলোয়াড়, কোচ এবং সমর্থকদের পাশাপাশি আমি নতুন ভূমিকায় তাদের লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করার জন্য উন্মুখ।” রাশিয়া-ইউক্রেইন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের ঘনিষ্ঠ হিসেবে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েন আব্রামোভিচ। তুমুল বিতর্কের মধ্যে ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে ক্লাবের ‘অভিভাবকত্ব’ ছেড়ে দেন তিনি চেলসিরই চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশনের হাতে।

তাতেও বিতর্ক না কমায় মার্চের শুরুতে এই তেল-গ্যাস ব্যবসায়ী ঘোষণা দেন চেলসি বিক্রি করে দেওয়ার। পরে আব্রামোভিচসহ সাত রুশ প্রভাবশালীকে নিষিদ্ধ করে যুক্তরাজ্য সরকার। তার সম্পত্তি জব্দ করা হয়। ক্লাবের ব্যবস্থাপনায় নেমে আসে স্থবিরতা। ক্লাব বিক্রির কার্যক্রমও বাধাগ্রস্থ হয়। ক্লাবটি তখন একটি বিশেষ লাইসেন্সে পরিচালিত হচ্ছিল, যা পরে চেলসিকে বিক্রির পথ সুগম করে। বাক চেয়ারম্যান থাকাকালীন সময়ে চেলসির সাফল্য নেহাত কম নয়। এই সময়ে ক্লাবটির পুরুষ দল ১৮টি ও নারী দল ১২টি মেজর শিরোপা জিতেছে।