১১ হাজার ৭৬৯ জন শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশ

20

দেশের বিভিন্ন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শূন্য পদের বিপরীতে ১১ হাজার ৭৬৯ জন শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছে। ‘বিশেষ গণবিজ্ঞপ্তি’ ও ‘ওয়েটিং লিস্ট’ থেকে এ শিক্ষক নিয়োগের ফল প্রকাশ করা হয়। রবিবার সচিবালয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ফল ঘোষণা করেন। ফলাফল তুলে ধরে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘এনটিআরসিএ প্রকাশিত বিশেষ গণবিজ্ঞপ্তি ২০২২ এর আওতায় ১৫ হাজার ১৬৩টি শূন্য পদে নিয়োগ সুপারিশের জন্য এবং ৩য় গণবিজ্ঞপ্তির আওতায় নিয়োগ সুপারিশের পর যে সব পদে কেউ যোগদান করে নি বা পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম দাখিল করেন নি এমন ৩ হাজার ৭৮১টি পদে প্রার্থী নির্বাচন করা হয়েছে।’
তিনি আরো বলেন, ‘এনটিআরসিএ’র ৩য় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির আওতায় যে সব পদে কেউ আবেদন করেন নি এমন ১৫ হাজার ১৬৩টি শূন্য পদে নিয়োগ সুপারিশ করার জন্য গত ৬ ফেব্রুয়ারি বিশেষ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ৩ লাখ ৪৩ হাজার ৪০৭টি আবেদন পাওয়া যায়। এই আবেদনগুলো টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেডের সফ্টওয়্যারের মাধ্যমে মেধা ও চাহিদা অনুযায়ী যাচাই বাছাই করা হয়। এতে মোট ৮ হাজার ৩৫৯ জনের আবেদন পাওয়া গেছে। তার মধ্য থেকে মেধা ও চাহিদার ভিত্তিতে ৪ হাজার ৭৫২ জন প্রার্থীকে নিয়োগ সুপারিশের জন্য নির্বাচন করা হয়।’ নির্বাচিত প্রার্থীদের পুলিশ বা নিরাপত্তা ভেরিফিকেশনের পরে নিয়োগ সুপারিশ করা হবে বলেও জানান তিনি। নির্বাচিত ৪ হাজার ৭৫২ প্রার্থীর মধ্যে এমপিও পদে ৪১৮৫ এবং নন-এমপিও পদে ৫৬৭ জন নির্বাচিত হয়েছেন।
মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের আওতায় পদ ২৫০৪টি এবং কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের আওতায় পদ ২২৪৮টি। একইসঙ্গে এনটিআরসিএ এর ৩য় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির আওতায় নির্বাচিত ৩৪ হাজার ৭৩ জন প্রার্থীর মধ্যে নিয়োগ সুপারিশের পর যে সব পদে কোনও প্রার্থী যোগদান করেন নি অথবা পুলিশ ভেরিফিকেশন ফরম দাখিল করেন নি এরূপ ৭ হাজার ১৭ টি পদে বিধি এবং মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ওয়েটিং লিস্ট থেকে ২য় মেধাধারীকে নির্বাচন করা হয়েছে। নির্বাচিত ৭ হাজার ১৭ জন প্রার্থীর মধ্যে এমপিও পদ ৬ হাজার ২০৫টি এবং ননএমপিও পদ ৮১২টি। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের আওতায় পদ ৪ হাজার ৫৩৯টি এবং কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের আওতায় পদ ২ হাজার ৪৭৮টি।
এ সকল নির্বাচিত প্রার্থীদেরও পুলিশ বা নিরাপত্তা ভেরিফিকেশনের পরে নিয়োগ সুপারিশ প্রদান করা হবে। নিয়োগ সুপারিশ প্রদানের লক্ষ্যে এনটিআরসিএ থেকে গত ৩০ মার্চ ২০২১ তারিখে ৩য় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। ওই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ৫৪ হাজার ৩০৪টি শূন্য পদের মধ্যে ৩৮ হাজার ২৮৩ জন প্রার্থীকে প্রাথমিকভাবে নির্বাচন করা হয়। ১৫ হাজার ১৬৩টি পদে কোনও আবেদন না পাওয়ায় প্রার্থী নির্বাচন করা সম্ভব হয়নি। নির্বাচিত প্রার্থীদের পুলিশ বা নিরাপত্তা ভেরিফিকেশনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয় এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রার্থীদের নিকট থেকে প্রাক নিয়োগ জীবন বৃত্তান্ত যাচাই সংক্রান্ত ভিআর ফরম সংগ্রহ করা হয়।
প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের মধ্য হতে মোট ৩৪ হাজার ৭৩ জন প্রার্থী ভিআর ফরম প্রেরণ করেন। গত ২০ জানুয়ারি উল্লিখিত নির্বাচিত ৩৪ হাজার ৭৩ জন প্রার্থীকে নিয়োগ সুপারিশ করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব আবু বকর ছিদ্দীক ও মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপচিালক অধ্যাপক নেহাল আহমদসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।