হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা ব্যবস্থাকে এগিয়ে নিতে হবে : ডেপুটি স্পিকার

3

ডেপুটি স্পিকার মো. শামসুল হক টুকু বলেছেন, হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা ব্যবস্থাকে এগিয়ে নিতে হবে।
মঙ্গলবার সিরাজগঞ্জে শহীদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী অডিটোরিয়ামে মোতাহার হোসেন তালুকদার হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ১ম ও ২য় ব্যাচের চিকিৎসক নিবন্ধন, সনদপত্র বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।
ডেপুটি স্পিকার বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সোনার বাংলা গড়ার লক্ষে স্বাস্থ্য-সেবাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব প্রদান করে সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত করে গিয়েছেন। তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চিকিৎসা সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে নিয়ে এসেছেন আমূল পরিবর্তন, গ্রামে-গঞ্জে তৈরি করে দিয়েছেন কমিউনিটি ক্লিনিক। সাধারণ জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে হোমিওপ্যাথিক ও আয়ুর্বেদিকের মতো বহুকাল ধরে চলে আসা চিকিৎসা ব্যবস্থাকে এগিয়ে নিতে হবে।
এসময় তিনি চিকিৎসকদের মধ্যে সনদপত্র বিতরণ করেন।
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেনÑ সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি এবং অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত এমপি।
শামসুল হক টুকু বলেন, হোমিওপ্যাথিক ও আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা ব্যবস্থা সমাজে বহুল প্রচলিত। সাধারণ মানুষ আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থার পাশাপাশি এই চিকিৎসা ব্যবস্থার সুফল ভোগ করছে। তবে এই চিকিৎসা ব্যবস্থা প্রশিক্ষিত ডাক্তারদের মাধ্যমে চালু থাকতে হবে যাতে মানুষ ভুল চিকিৎসায় কোনোভাবে ক্ষতিগ্রস্ত না হয়। তিনি বলেন, সংবিধানের মাধ্যমে জাতির পিতা মদ ও জুয়া নিষিদ্ধ করে গিয়েছেন। সুস্থ মানবসম্পদ গড়ার লক্ষে প্রধানমন্ত্রী কমিউনিটি ক্লিনিকসহ সকল পর্যায়ে জনগণের জন্য স্বাস্থ্যসেবা প্রাপ্তির সুযোগ তৈরি করে দিয়েছেন। প্রতিটি গ্রামে ডিগ্রিধারী ও প্রশিক্ষিত হোমিওপ্যাথিক ডাক্তার থাকলে সাধারণ মানুষের চিকিৎসার সুযোগ আরো সহজতর হবে।
সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. মাহবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক বোর্ডের চেয়ারম্যান ডা. দিলীপ কুমার রায়, সিরাজগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ বিশ্বাস, সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কে এম হোসেন আলী হাসান ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ তালুকদার, সিরাজগঞ্জ চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট আবু ইউসুফ সূর্য বক্তব্য দেন।