হিলি বন্দর দিয়ে শুরু কাঁচামরিচ আমদানি

8

নয় মাস পর দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে কাঁচামরিচ আমদানি শুরু হয়েছে। আমদানির খবরে একদিনেই স্থানীয় বাজারের দাম কেজিতে ২০ টাকা কমেছে। হিলি শিপিং ট্রের্ডাস ও সততা বাণিজ্যালয় নামে দুই প্রতিষ্ঠান ভারতের বিহার থেকে এই কাঁচামরিচ আমদানি করছে।
শনিবার দুপুরে কাঁচামরিচ বোঝাই ট্রাক প্রবেশের মধ্যে দিয়ে আমদানি কার্যক্রম শুরু হয়। হিলি স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠানের সভাপতি হারুন উর রশীদ হারুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে গত বছরের ১০ নভেম্বর ভারত থেকে কাঁচামরিচ আমদানি বন্ধ হয়ে যায়। দেশের বাজারে কাঁচামরিচের দামের ঊর্ধ্বগতির কারণে ফের ভারত থেকে কাঁচামরিচ আমদানির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। হিলি বাজারের দুই আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানকে দুই হাজার টন কাঁচামরিচ আমদানির অনুমতি দেয়া হয়েছে।
এদিকে, কাঁচামরিচ আমদানির খবরে দুপুরেই হিলি বাজারে দাম কিছুটা কমতে শুরু করে। ২২০ টাকা কেজি দরে মরিচ বিক্রি হয়, যা গত শুক্রবারও বিক্রি হয়েছিল ২৩০-২৪০ টাকায়।
বন্দরে মরিচ কিনতে আসা পাইকার আবদুল হামিদ বলেন, দীর্ঘদিন ভারত থেকে কাঁচামরিচ আমদানি বন্ধের পর আবারো আমদানি শুরু হয়েছে। আমরা এখান থেকে মরিচ কিনে দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠাই। তিনি বলেন, ভারতীয় কাঁচামরিচ আমদানির খবরে বাজারে ২০ থেকে ৩০ টাকা কমে মরিচ বিক্রি হচ্ছে।
আমদানিকারক মাহাবুব আলম বলেন, দীর্ঘদিন বন্ধের পর নতুন করে অনুমতি পাওয়ায় দুপুরে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে কাঁচামরিচ আমদানি শুরু হয়েছে। ভারতের বিহার থেকে মরিচগুলো আমদানি করা হচ্ছে।
আরেক আমদানিকারক জামিল হোসেন বলেন, আমদানি করা এসব কাঁচামরিচ প্রতি মেট্রিক টনের এলসি ভ্যালু দেখানো হয়েছে ১৫০ থেকে ২০০ মার্কিন ডলার। তবে কাস্টমসে শুল্কায়ন হচ্ছে প্রতি টন ৫০০ মার্কিন ডলারে। এর ফলে প্রতি কেজি কাঁচামরিচ আমদানিতে ব্যবসায়ীদের শুল্ক গুনতে হচ্ছে ২৮ টাকা।