হাসপাতালে জ্যোতিকা জ্যোতি

10

ভার্সেটাইল অভিনেত্রী ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পরিচালক জ্যোতিকা জ্যোতি অসুস্থ হয়ে রাজধানীর একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। শনিবার রাতে তীব্র পেট ব্যথা নিয়ে তিনি হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আসেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি ডায়াবেটিসের জটিলতাসহ নানাবিধ অসুখে ভুগছেন। মধ্যরাতে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন পরিচালক ও নির্মাতা নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল। চিকিৎসকরা বলছেন, শরীরে রক্তের প্রদাহ, ইলেকট্রোলাইট ইমব্যালেন্স ও কিডনি সংক্রমণসহ নানাবিধ উপসর্গ এবং অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস রয়েছে। তার যথাযথ চিকিৎসা এবং রোগ নির্ণয় প্রক্রিয়া চলছে।

বর্তমানে তিনি এন্ডোক্রাইনোলজিস্ট (ডায়াবেটিস ও হরমোন বিশেষজ্ঞ) ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ এর তত্ত্বাবধানে রয়েছেন। তবে তিনি কমপক্ষে ৪৮ ঘণ্টা অবজারভেশনে থাকবেন। প্রসঙ্গত, নাটকের পাশাপাশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেও দর্শকদের নজর কাড়েন জ্যোতিকা জ্যোতি। ২০০৫ সালে মুক্তি পায় তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র ‘আয়না’। এরপর তিনি অভিনয় করেন তানভীর মোকাম্মেলের ‘জীবনঢুলী’ এবং আজাদ কালামের ‘বেদেনী’ সিনেমায়। ২০১০ সালের শুরুর দিকে প্রথম স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ব্রেক আপ’-এ অভিনয় করেন এই অভিনেত্রী। এ ছাড়া বিভিন্ন অনুষ্ঠানে উপস্থাপিকা হিসেবেও কাজ করেন জ্যোতিকা জ্যোতি।

১৯৮৪ সালের ১১ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুরে জন্মগ্রহণ করেন জ্যোতিকা জ্যোতি। সেখানেই এই অভিনেত্রীর জ্যোতির পৈত্রিক নিবাস। আনন্দ মোহন কলেজ থেকে ইংরেজিতে মাস্টার্স করার পর তার বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নেওবার কথা ছিল তার। মাস্টার্সে পড়ার সময়ই ময়মনসিংহের বহুরূপী থিয়েটারে যোগ দেন তিনি। পরবর্তীতে বিসিএস পরীক্ষায় অংশগ্রহণ না করে অভিনয়কেই পেশা হিসেবে বেছেন নেন জ্যোতিকা জ্যোতি। তার উল্লেখযোগ্য কয়েকটি চলচ্চিত্র ও নাটকের নাম হলো- ‘নন্দিত নরকে’, ‘অনিল বাগচীর একদিন’, ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’, ‘বঙ্গমাতা’। নাটক- ‘আর একবার’, ‘গন্তব্যের দিকে’, ‘চিঠি’, ‘জামাই অভিজান’, ‘বিশ্বাসে ভালোবাসা’, ‘মুকুটহীন নবাব’, ‘হাওয়াই শহরের গল্প’।