স্বপ্নপূরণের লক্ষ্যে পরিশ্রমের বিকল্প নেই : নানি

3

ঘণ্টা নবীন বাবু। কৈশোরে স্বপ্ন দেখতেন অভিনেতা হওয়ার। যার কারণে ওই সময়ে প্রিয় তারকাদের সিনেমা দেখতে ছুটে যেতেন প্রেক্ষাগৃহে। স্বপ্নপূরণের লক্ষ্যে পরিশ্রমকে পুঁজি করে এই মাধ্যমে হাঁটতে শুরু করেন তিনি। সহকারী পরিচালক হিসেবে রঙিন দুনিয়া পথচলা শুরু হয় তার। এরপর নাম লেখান অভিনয়ে। রুপালি জগতে নানি নামে খ্যাতি কুড়ান ঘণ্টা নবীন বাবু। কৈশোরের সেই স্বপ্নবাজ ঘণ্টা নবীন বাবু তেলেগু ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে ১৪ বছর পার করে দিয়েছেন। উপহার দিয়েছেন অনেক ব্যবসাসফল সিনেমা। আর দর্শকের মুঠো মুঠো ভালোবাসা কুড়িয়েছেন। অভিনয়ে সফল হলেও এই নায়ক অহমবোধ লালন করেন না। বরং ব্যর্থতার স্বাদ নেওয়ার জন্যও সদা প্রস্তুত থাকেন। টাইমস অব ইন্ডিয়ার সঙ্গে আলাপকালে নানি বলেনÑ‘আমি যখন সফলতার স্বাদ পেয়েছি, তখন ভেবেছি- এমন একটি দিন আসবে যেদিন পুনরায় ব্যর্থ হবো! আমি খুবই বাস্তববাদী মানুষ। এই সফলতা একদিনে পাইনি। আমি আমার সেরাটা দিয়ে কঠোর পরিশ্রম করে যেতে পারি। নিজের কাজকে উপভোগ করার জন্য এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমি ভাগ্যবান। কারণ যে কাজ করতে ভালোবাসি, তা করার জন্য প্রতিদিন জেগে ওঠি।’ ২০০৮ সালে ‘অষ্ট চামা’ সিনেমার মাধ্যমে বড় পর্দায় পা রাখেন নানি। হলিউডের এই রিমেক সিনেমাটি ব্যবসায়ীকভাবে সফল হয়। তারপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। নানি অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র হলোÑমজনু, নেনু লোকাল, নিনু কোরি, জার্সি, শ্যাম সিং রায় প্রভৃতি। বর্তমানে তেলেগু ভাষার ‘দশরা’ সিনেমার কাজ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন নানি। অ্যাকশন-ড্রামা ঘরানার এ সিনেমায় তার বিপরীতে অভিনয় করছেন কীর্তি সুরেশ। এটি পরিচালনা করছেন শ্রীকান্ত ওডেলা। ২০২৩ সালের ৩০ মার্চ সিনেমাটি মুক্তির কথা রয়েছে।