সারা বাংলা ৮৮ ও ৯২ ব্যাচের মিলন মেলা

30

সারা বাংলা ৮৮ ও ৯২ ব্যাচের মিলন মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার পৃথক আয়োজনে এই মিলন মেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জে অনুষ্ঠিত হয়।
সুখে দুখে পাশাপাশি এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সারা বাংলাদেশের ১৯৮৮ সালের এসএসসি ব্যাচের শিক্ষার্থীদের নিয়ে যাত্রা শুরু করা সারা বাংলা ৮৮’র চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্যানেলের উদ্যোগে বন্ধু মিলন মেলা আয়োজন করা হয়। জেলা শহরের উপকণ্ঠ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতু সংলগ্ন জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে দ্বিতীবারের মত বসে এই বন্ধু মিলন মেলা।
বন্ধু মিলন মেলা উপলক্ষে সকালে জেলা শিল্পকলা একাডেমি চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় স্মৃতিচারণ। এতে অংশ নেয়ারা তাঁদের স্কুল জীবনের মধুর স্মৃতি কথায় কথায় তুলে ধরেন।
এসময় শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন, সারা বাংলা ৮৮’র ঢাকা প্যানেলের মডারেটর খাইরুল ইসলাম পান্না, কানিজ ফাতেমা, আব্দুর রহমান মুন্সি।
মিলন মেলার দ্বিতীয় পর্বে আমিনুল হক আবিরের উপস্থাপনায় সংগীত, কৌতুক পরিবেশন করেন, সারা বাংলা ৮৮ এর বন্ধু বাবুল রেজা, নুরুল ইসলাম, আব্দুর রহমান এডু, আরিফুল ইসলাম আরিফ, শহীদুল হুদা অলক, কামরুল হাসান জুয়েল, নাইমুল হাসান, শরিফুল ইসলাম শরিফ, সাইফুল ইসলাম তনু, নুরুল ইসলাম টিপু, গোলাম কিবরিয়া কোয়েল, সামশুল হক রানা, মনোয়ার আলী মিন্টু, সেলিনা বিশ্বাস। কবিতা আবৃত্তি করেন, রোকসানা আহমদ হীরা, আরিফুল ইসলাম অনু।
দিনভর অনুষ্ঠিত বন্ধু মিলন মেলায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১৯৮৮ সালের এসএসসির শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ দেশের বিভিন্নপ্রান্তে ছড়িয়ে থাকা বন্ধুদের মিলন মেলায় আবেগঘন ও উচ্ছ্বাসপূর্ণ পরিবেশের সৃষ্টি হয়। দীর্ঘদিন পর একত্রিত হওয়া বন্ধুরা আড্ডায় মেতে উঠেন। মিলন মেলায় দিনাজপুর ও বি. বাড়িয়ার ৬ জন অতিথি বন্ধু অংশ নেন।
শেষে লটারির মাধ্যমে নির্বাচিত ২০ জনকে পুরস্কার এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্যানেলের সদস্য নাজনীন আক্তারের কন্যা নাবিলা আক্তারকে সারা বাংলা ৮৮ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে শিক্ষা বৃত্তি প্রদান করা হয়।
এদিকে সারাদেশের ১৯৯২ সালের এসএসসি ব্যাচের শিক্ষার্থীদের নিয়ে গড়া প্লাটফরম ‘এসএসসি-৯২ আস্থা থাকুক বন্ধতায়’ এর বন্ধুদের মিলন মেলা ও বসন্ত উৎসব চাঁপাইনবাবগঞ্জে অনুষ্ঠিত হয়। শুক্রবার দিনভর শহিদ সাটু হল মিলনায়তনে এই বসন্ত উৎসবের আয়োজন করে চাঁপইনবাবগঞ্জ জেলা উদযাপন কমিটি।
অনুষ্ঠানের শুরুতেই অংশগ্রহণকারী বন্ধুদের চাঁপাইনবাবগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী বেগুন ভর্তা ও ধনিয়া পাতার চাটনি দিয়ে মাসকলাইয়ের রুটির নাস্তা করানো হয়। এরপর শুরু হয় আলোচনা পর্ব। অংশগ্রহণকারীরা তাঁদের স্মৃতিচারণ করেন।
দুপুরে মধ্যাহ্নভোজের পর চাঁপাইনবাবগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী গম্ভীরা পরিবেশন করা হয় এবং অংশগ্রহণকারীদের জেলা পরিচিতি স্বারক উপহার দেয়া হয়।
এসএসসি ব্যাচ ১৯৯২ এর মূল গ্রুপ অ্যাডমিন আবদুল্লা আল মামুন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেন, তিন বছর আগে এই গ্রুপের যাত্রা শুরু হয়েছিল। যার বর্তমান সদস্য সংখ্যা প্রায় ৩৬ হাজার।
গ্রুপটির প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে মানবতার কল্যাণে সারাদেশে একসাথে অনলাইন প্লাটফর্মের মাধ্যমে কাজ করা।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা হতে প্রায় ৭শ জন বন্ধু এই উৎসবে অংশগ্রহণ করেন।