সাংহাইয়ে লকডাউন শুরুর পর কমলো তেলের দাম

3

চীনের বৃহত্তম শহর, গুরুত্বপূণ আর্থিক ও উৎপাদন কেন্দ্র সাংহাইয়ে লকডাউন শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী তেলের মূল্য কমেছে। সোমবার থেকে শুরু হওয়া এ লকডাউনের কারণে চাহিদা পড়ে যাবে, এই উদ্বেগে ব্রেন্ট অপরিশোধিত তেল ব্যারেল প্রতি ৪ দশমিক ৫০ ডলারেরও বেশি মূল্য হারিয়েছে। দুই বছর আগে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকে এটিই চীনের বৃহত্তম লকডাউন বলে জানিয়েছে বিবিসি। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির অস্থিরতার কবলে পড়া এড়াতে চীনের কর্তৃপক্ষ প্রায় আড়াই কোটি জনসংখ্যার এ শহরটিতে লকডাউন না দিতে শেষ পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু গত শনিবার সাংহাইয়ে দৈনিক কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা সর্বোচ্চে পৌঁছালে কর্তৃপক্ষ মত বদলায় বলে মনে করা হচ্ছে। শহরটিতে দুই পর্বে নয় দিন ব্যাপী এ লকডাউন কার্যকর হবে।

পাশাপাশি কোভিড-১৯ পরীক্ষাও চলবে। প্রায় এক মাস ধরে সাংহাইয়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণের একটি নতুন ঢেউ শুরু হয়েছে, তবে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কিছু আন্তর্জাতিক মানের তুলনায় তেমন বেশি নয়। চলতি মাসের প্রথমদিকে পুরো জিলিন প্রদেশ ও প্রযুক্তি হাব শেনজেংয়ের বাসিন্দারাসহ চীনের কয়েক কোটি লোক লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আর এখন সাংহাইয়ে লকডাউন শুরু হয়েছে। নগরীটির সরকারি পরিবহন বন্ধ রাখা হয়েছে এবং সংস্থা ও কারখানাগুলোকে কার্যক্রম বন্ধ রাখার অথবা অনলাইনে কাজ চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গতকাল সোমবার থেকে সাংহাইয়ের পূর্বাংশে লকডাউন শুরু হয়ে ১ এপ্রিল পর্যন্ত বজায় থাকবে আর শুক্রবার থেকে নগরীর পশ্চিমাংশে লকডাউন শুরু হয়ে ৫ এপ্রিল পর্যন্ত থাকবে।

এই পদ্ধতিতে শহরের এক পাশে লকডাউন ও অপর পাশ খোলা থাকবে। করোনাভাইরাস সংক্রমণের নতুন ঢেউ শুরু হওয়ার পর কিছু প্রতিষ্ঠান সাংহাইয়ে তাদের ব্যবসা বন্ধ রেখেছে। গত সপ্তাহে সাংহাই ডিজনি রিসোর্ট জানিয়েছে, ‘চলমান মহামারী পরিস্থিতির কারণে’ পরবর্তী নোটিশ না দেওয়া পর্যন্ত তাদের প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। গতকাল সোমবার প্রাথমিক ট্রেডের সময় সাংহাই কম্পোজিট স্টকের সূচকের পতন হয়, কিন্তু দিনের পরবর্তী সময়ে সূচকের ঊর্ধ্বগতিতে বেশিরভাগ ক্ষতি পুনরুদ্ধার হয়। তেলের মূল্যের একটি আন্তর্জাতিক সূচক ব্রেন্টের অপরিশোধিত তেলের ভবিষ্যৎ সরবরাহ চুক্তিগুলো ৪ শতাংশ হ্রাসে প্রতি ব্যারেল ১১৫ দশমিক ৮০ ডলারে স্থিরকৃত হয়। তবে এই পতন সত্ত্বেও এক বছর আগে তেলের মূল্য যা ছিল তা থেকে এখনও ৮০ শতাংশ বেশি রয়ে গেছে। রাশিয়া ইউক্রেইনে আক্রমণ শুরু করার পর বিশ্বব্যাপী জ¦ালানি তেলের মূল্য বাড়তে শুরু করে এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়।