সরাসরি বিশ্বকাপে ওঠার আশা টিকে রইলো পর্তুগালের

58

দ্বিতীয়ার্ধে বদলি নেমে দলকে পথ দেখালেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। গোলের দেখা পেলেন আন্দ্রে সিলভাও। তাদের গোলে অ্যান্ডোরাকে হারিয়ে সরাসরি রাশিয়া বিশ্বকাপে ওঠার আশা টিকিয়ে রেখেছে পর্তুগাল।
শনিবার রাতে প্রতিপক্ষের মাঠে ২-০ গোলে জিতেছে গতবারের ইউরো চ্যাম্পিয়নরা।
গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই রোনালদোকে নামান কোচ ফের্নান্দো সান্তোস। ৬৩তম মিনিটে ছয় গজ বক্সের বাইরে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ঠান্ডা মাথায় দলকে এগিয়ে দেন রিয়াল মাদ্রিদ তারকা।
এবারের বাছাইপর্বে এই নিয়ে আট ম্যাচে ১৫ গোল করলেন রোনালদো। জাতীয় দলের হয়ে ১৪৫ ম্যাচে এটা তার ৭৯তম গোল।
৮৬তম মিনিটে কাছ থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করে জয় নিশ্চিত করেন এসি মিলানের ফরোয়ার্ড আন্দ্রে সিলভা।
নয় ম্যাচে আট জয়ে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে ‘বি’ গ্রুপের দ্বিতীয় স্থানে আছে পর্তুগাল।
শতভাগ জয়ের ধারা ধরে রেখেছে সুইজারল্যান্ড। হাঙ্গেরিকে ৫-২ গোলে হারিয়ে ২৭ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে সুইসরা।
আগামী মঙ্গলবার ঘরের মাঠে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে মুখোমুখি হবে পর্তুগাল। সরাসরি বিশ্বকাপে উঠতে ওই ম্যাচে জয়ের বিকল্প নেই তাদের।
সাড়ে আট দশক পর অবশেষে বুলগেরিয়ার মাঠে জয় পেয়েছে ফ্রান্স। ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছে ১৯৯৮ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ব্লেইস মাতুইদির গোলে পাওয়া এই জয়ে গ্রুপের শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে ফরাসিরা। তাদের পয়েন্ট ২০।
এই ম্যাচের আগে সবশেষ ১৯৩২ সালে বুলগেরিয়াকে তাদেরই মাঠে হারিয়েছিল ফ্রান্স। সেবার ৫-৩ গোলে জিতেছিল ফ্রান্স।
ঘরের মাঠে লাক্সেমবার্গকে ৮-০ গোলে উড়িয়ে সরাসরি বিশ্বকাপে খেলার সম্ভাবনা ধরে রেখেছে সুইডেনও। ১ পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে তারা।
গ্রুপের আরেক ম্যাচে বেলারুশকে ৩-১ গোলে হারানো নেদারল্যান্ডস ১৬ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে। শেষ রাউন্ডে সুইডেনকে হারিয়ে পয়েন্টের হিসেবে তাদের ধরার সুযোগ আছে ঠিকই; কিন্তু গোল ব্যবধানে অনেক পিছিয়ে ডাচরা।
‘এইচ’ গ্রুপ থেকে বিশ্বকাপের টিকেট আগেই নিশ্চিত করা বেলজিয়াম জয়ের ধারা ধরে রেখেছে। বসনিয়া-হার্জেগোভিনার মাঠে ৪-৩ গোলে জিতেছে তারা। তাদের পয়েন্ট ২৫।
গ্রুপের অন্য ম্যাচে সাইপ্রাসের মাঠে ২-১ গোলে জিতে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে গ্রিস। প্লে-অফের আশা বাঁচিয়ে রেখেছে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে থাকা বসনিয়াও।
ইউরোপ থেকে বাছাইপর্বের নয় গ্রুপের সেরা নয় দল সরাসরি বিশ্বকাপে খেলবে। বাকি সেরা আট রানার্সআপ খেলবে প্লে-অফ। তার মধ্যে থেকে চার দল পাবে রাশিয়া বিশ্বকাপে খেলার টিকেট।