সরদার সরাফত আলীর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

13

চাঁপাইনবাবগঞ্জের সাবেক জেলা প্রশাসক এবং সরকারের সাবেক অতিরিক্ত সচিব (এলজিএসপি) সরদার সরাফত আলীর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে।  শনিবার বিকেলে এ উপলক্ষে কোরআনখানি, স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলাশহরের বাবু গিরিশ চন্দ্র মৌলিক মার্কেটের (শিল্পকলা মার্কেট) ৪র্থ তলায় দৈনিক চাঁপাই দর্পণের নিজস্ব কার্যালয়ে ‘চাঁপাই দর্পণ’ পরিবার এসব কর্মসূচির আয়োজন করে।
দৈনিক চাঁপাই দর্পণের প্রকাশক ও সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম রঞ্জুর সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় আলোচনা করেনÑ জেলা স্বাধীন প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক চাঁপাই চিত্রের প্রধান প্রতিবেদক ফারুক আহমেদ চৌধুরীসহ অন্যরা।
স্মরণ সভায় উপস্থিত ছিলেনÑ দর্পণ উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মোসলেমা বেগম মুসি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ শিশু শিক্ষা নিকেতনের প্রধান শিক্ষক আনিসুর রহমান, চাঁপাই দর্পণের কম্পিউটার সহকারী আসমা খাতুন, সাংবাদিক মেহেদী হাসান সিয়াম, রেডিও মহানন্দার প্রতিনিধি মৌসুমী খাতুনসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।
সভায় মরহুম সরদার সরাফত আলীর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় দায়িত্ব পালনকালে সরকারি দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি মিডিয়াকর্মীদের সাথে সখ্যতাসহ বিভিন্ন উন্নয়ন ও সামাাজিক কর্মকা-ের বিবরণ তুলে ধরেন আলোচকরা।
শেষে মরহুম সরদার সরাফত আলীর রুহের মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়। এছাড়াও দর্পণ পরিবারের প্রয়াত ২ সদস্য অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান ও অ্যাডভোকেট আবুল কাশেমের রুহের মাগফেরাত কামনা করেও দোয়া করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন বারঘরিয়া মিফতাহুল উলুম মাদরাসার শিক্ষক হাফেজ মো. কাওসার হোসেন।
স্মরণসভায় বারঘরিয়া মিফতাহুল উলুম মাদরাসার পরিচালক মাওলানা হাসান মোহাম্মদ ইসহাকের সহায়তায় মাদরাসার ১০ জন হাফেজ কোরআনখানিতে (খতমে কোরআন) অংশ নেন।
এর আগে শুক্রবার জুম্মা নামাজের পর মহারাজপুর মন্ডলপাড়া জামে মসজিদে দোয়ার আয়োজন করা হয়।
উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১২ মার্চ বৃহস্পতিবার ১২টা ৫০ মিনিটে ঢাকা মতিঝিল সিটি সেন্টারে এলজিএসপি প্রকল্প অফিসে সরকারের অতিরিক্ত সচিব পদে দায়িত্ব পালনকালে কর্মরত অবস্থায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে সরদার সরাফত আলী মৃত্যুবরণ করেন। তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে দৈনিক চাঁপাই দর্পণের প্রকাশনার অনুমতি (ডিক্লারেশন) দিয়েছিলেন। তিনি জেলা প্রশাসক হিসেবে ২০১৩ সালের ২০ এপ্রিল হতে ২০১৪ সালের ২২ জুন পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।
মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৬ বছর। তিনি স্ত্রী, ১ ছেলে ও ১ মেয়ে, ৩ ভাই, ১ বোনসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গিয়েছেন। তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা প্রশাসক, ফরিদপুর জেলা প্রশাসকসহ সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন।