সব আসনে সিসি ক্যামেরা বসানো অসম্ভব : চাঁপাইনবাবগঞ্জে ইসি আহসান হাবিব খান

43

সব দলের অংশগ্রহণে আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠানের আশা প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশনার অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আহসান হাবিব খান বলেছেন, ‘লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি আছে। আমি মনে করি নির্বাচনী ফিল্ড ইজ লেভেল অ্যান্ড প্রিপিয়ার্ড। প্লেয়ার টু কাম অ্যান্ড প্লে অন দ্য গ্রাউন্ড।’
শনিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জে ছবিসহ ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম পরিদর্শনে এসে সংবাদকর্মীদের তিনি এসব কথা বলেন।
এসময় রাজনৈতিক সরকারের অধীনে নির্বাচনের ক্ষেত্রে যে চাপ থাকবে সেটা কিভাবে মোকাবিলা করবে নির্বাচন কমিশন- এমন প্রশ্নে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহসান হাবিব খান বলেন, এ মোকাবিলা শুধু নির্বাচন কমিশনের করার কথা না, এ মোকাবিলা প্রত্যেকটা ভোটারের করার কথা, প্রশাসনের প্রত্যেকটা এলিমেন্টের করার কথা। আপনারা যারা সাংবাদিক আছেন, তারাও কিন্তু সহায়তার ভূমিকা পালন করবেন। তিনি বলেন, আমি আপনাদের অনুরোধ করছি আপনারা দেখেন, অনুধাবন করেন। আমরা সকল দলকে আলোচনার জন্য মতবিনিময়ে ডেকেছি। কেউ কেউ এসেছে, কেউ কেউ আসেননি। আমাদের দরজা সব সময়ই খোলা, যে কোনো সময় কেউ যদি আশা প্রকাশ করে আলোচনার জন্য আমরা অবশ্যই তাদের সাথে আলোচনা করব। তবে কিছু কাজ আছে যা আমরা সাংবিধানিকভাবে করব, আর কিছু কিছু বিষয় আছে সরকারের, সেটা সরকারের কাছেই আলোচনা-সমালোচনা আবদার সরকারের কাছেই করতে হবে। আমাদের কাজ আমরা সঠিক করছি কিনা সেটা আপনারা আপনাদের দৃষ্টি দিয়ে দেখেন ও দেশবাসীকে জানান।
সাংবাদিকদের অপর প্রশ্নের জবাবে নির্বাচন কমিশনার বলেন- জাতীয় নির্বাচনকে ঘিরে ৩০০ আসনে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করে তা পরিচালনা করা সম্ভব কিনা তা আপনরাই বুলুন। তিনি বলেন, গাইবান্ধার নির্বাচনে ১৪৩টি কেন্দ্রে ১১শ সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছিল। কিন্তু সারাদেশের ৩০০ আসনে সিসি ক্যামেরা বসানো হলে প্রায় ৪ লক্ষাধিক সিসি ক্যামেরা প্রয়োজন। তাই সাধ এবং সাধ্য সব মিলিয়ে এটা অসম্ভব। শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় নবাবগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদ পরিদর্শন করেন।
জাতীয় নির্বাচনকে ঘিরে অন্য দেশের রাষ্ট্রদূতদের তৎপরতা দেখার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের নয় বলেও মন্তব্য করেন নির্বাচন কমিশনার আহসান হাবিব। তিনি বলেন, বিদেশী রাষ্ট্রদূত যদি কেউ কোনো মতামত দিতে চান, এটা দেখার জন্য আমাদের ভিন্ন মন্ত্রণালয় আছে। আমরা শুধু নির্বাচন পরিচালনা করার জন্য যা করা দরকার তাই করব। অন্য কোনো বিষয় দেখার দায়িত্ব আমাদের নয়।
এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- জেলা প্রশাসক একেএম গালিভ খাঁন, পুলিশ সুপার এএইচএম আবদুর রকিব, রাজশাহীর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা সাইফুল ইসালম, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোতাওয়াক্কিল রহমান, সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসার মাহবুবুল কবীর।
এর আগে নির্বাচন কমিশনার মো. আহসান হাবিব খান চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা নির্বাচন অফিসে নির্বাচন কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।