সবজি প্যাকেটজাত করায় প্লাস্টিকের ব্যবহার নিষিদ্ধ

5

ফ্রান্সে ফল ও সবজি প্যাকেটজাত করার ক্ষেত্রে প্লাস্টিকের ব্যবহার নিষিদ্ধ হয়েছে। গত শনিবার থেকে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরেই পরিবেশ দূষণ করে এসব প্লাস্টিক- এমন দাবি করে তা বন্ধের দাবি জানিয়ে আসছিলেন পরিবেশবিদরা। অন্যদিকে তাদেরকে আশার বাণী শুনিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন। এ বিষয়ে অক্টোবরে একটি ডিক্রি জারি হয়। তার অধীনে ১.৫ কেজির কম ওজনের আপেল প্লাস্টিকের প্যাকেটে করে বিক্রি করা যাবে না। তবে এ বিষয়ক যে আইনটি আছে তা ২০২৬ সালের আগে পুরোপুরি প্রয়োগ করা হবে না। এসব পণ্য উৎপাদনের সঙ্গে জড়িত প্রতিষ্ঠানগুলোকে এ পর্যন্ত অন্য কোনো উপায় বাতলে নেয়ার জন্য সময় দেয়া হচ্ছে। বিদ্যমান প্লাস্টিকের মজুদ ব্যবহারের অনুমোদন দেয়া হয়েছে ৬ মাস পর্যন্ত। ফলমূল এবং সবজি বিষয়ক খাতের ইন্টারফেল অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান লরা গ্রান্ডিন অভিযোগ করেন- এ বিষয়ে আমাদের সঙ্গে কোনোই পরামর্শ করা হয়নি।

তিনি বলেন, সরকারের গৃহীত এমন নীতির ফলে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কোম্পানিগুলোর খরচ বেড়ে যাবে অস্বাভাবিকভাবে। কারণ এসব কোম্পানি ফলমূল, শাকসবজি রপ্তানির সময় তা যাতে নষ্ট না হয়, সেজন্য প্লাস্টিক ব্যবহার করে। এমন আমদানিকারক দেশের মধ্যে আছে বৃটেন। এ দেশটি আপেলের ক্রেতাদের মধ্যে বৃহৎ একটি ক্রেতা। ফ্রান্সের লোইরে ভ্যালিতে বছরে ৪০ হাজার টন আপেল উৎপাদন করে পোমানজৌ নামের প্রতিষ্ঠান। গত তিন বছর তারা এসব আপেল প্যাকেজিংয়ে ব্যবহার করেছে শতভাগ কার্ডবোর্ড। এসব কারণে আপেলের দাম বেড়ে গেছে শতকরা ২০ থেকে ৩০ ভাগ। এ কথা জানিয়েছেন এই কোম্পানির প্রতিনিধি আরনাউদ ডি পুইনিউফ। বড় মাপের সুপারমার্কেটের গ্রæপ ক্যাসিনো বলেছে, তারা এখন টমেটো পর্যন্ত কার্ডবোর্ডে করে প্যাকেজিং করবে।

আর কাস্টমারদের কাছে তা পৌঁছে দেয়া হবে কাগজ বা সেলুলোজে তৈরি ব্যাগে করে। অন্যদিকে প্যাকেজিং কোম্পানিগুলো বলেছে, সরকারের ৮ই অক্টোবরের ডিক্রিতে তারা বিস্মিত। বিশেষ করে নবায়নকৃত প্লাটিকের ওপর নিষেধাজ্ঞায় তারা বেশি হতবাক। এমন কোম্পানিগুলোর সংগঠন ইলিপসো এক বিবৃতিতে বলেছে, আমাদের এমন অনেক ক্লায়েন্ট প্রতিষ্ঠান আছে, যাদেরকে ফলমূলক ও শাকসবজি প্যাকেজিং বন্ধ করে দিতে হবে। তারা অনেক বছর ধরে কম পরিমাণে প্লাস্টিক বা নবায়নকৃত প্লাস্টিক ব্যবহারের দিকে ঝুঁকলেও এই নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। ৩৫০০টি ফার্মের প্যাকেজিং বিষয়ক ইউনিয়ন ইলিপসো এবং পোলিভিয়া। তারা ফ্রান্সের স্টেট কাউন্সিলের কাছে আবেদন করেছে। এই পরিষদ প্রশাসনিক বিরোধের সমাধান দিয়ে থাকে।