ষষ্ঠীপূজার মধ্যদিয়ে শুরু হলো দুর্গোৎসব, আজ মহাসপ্তমী

140

ষষ্ঠীপূজার মধ্যদিয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ছয়টায় কল্পারম্ভ, বিকেল চারটায় বোধন আমন্ত্রণ ও অধিবাস দিয়ে শুরু হয় ষষ্ঠীপূজা। এদিকে দিনভর চ-িপাঠে মুখরিত ছিল সব ম-প। আজ বুধবার মহাসপ্তমী পূজা অনুষ্ঠিত হবে।
দেবী দূর্গার আগমনে ভক্তদের মাঝে লেগেছে আনন্দের দোলা। মঙ্গলবার বিকালের পর থেকেই মন্ডপে মন্ডপে দর্শনার্থীদের ভির লক্ষ করা যায়, আয়োজকরা বলছেন এই ভিড় আরো বাড়বে।
বিশুদ্ধ পঞ্জিকামতে, জগতের মঙ্গল কামনায় দেবী দুর্গা এবার মর্ত্যলোকে আসবেন নৌকায় চড়ে। ফলে ধরণীতে শস্য বৃদ্ধি পাবে। আর বিজয়া দশমীতে বিসর্জনের মধ্য দিয়ে দেবী স্বর্গলোকে বিদায় নেবেন ঘোটকে চড়ে।
চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলাম জানান, প্রতিটি মন্ডপে নিরাপত্তার বিষয়ে সার্বক্ষনিক সমন্বয়নের জন্য একজন পুলিশ অফিসারকে দ্বায়িত্ব দেয়া হয়েছে। প্রতিটি ম-পে সুশৃঙ্খল পরিবেশ বজায় রাখতে পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি দ্বায়িত্ব পালন করবে আনসার ও মন্ডপের স্বেচ্ছাসেবকরা। সাদা পোষাকে থাকবে গোয়েন্দা সদস্যদেরে নজরদারী। নিরাপত্তা নিশ্চিতে জেলার গুরুত্বপূর্ণ মন্ডপগুলিতে সিসিটিভি’র আওতায় আনা হয়েছে, প্রবেশ পথ গুলোতে মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে তল্লাসীর মাধ্যমেই প্রবেশ করতে পারবেন আগতরা।
গোমস্তাপুর প্রতিনিধি :
চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলায় ২৪টি মন্ডপে দূর্গা পূজা শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দেবীর বোধনের মাধ্যমে মন্ডপগুলোতে দূর্গা পূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। ইতিমধ্যে মন্ডপগুলোতে প্রতিমা স্থাপন সম্পন্ন হয়েছে। দূর্গা পূজা নির্বিঘেœ সম্পন্ন করতে স্থানীয় প্রশাসন নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিহাব রায়হান জানান, দূর্গাপূজার সার্বক্ষনিক খোঁজ খবর রাখতে উপজেলায় একটি নিয়ন্ত্রন কক্ষ খোলা হয়েছে। এছাড়া ২৪টি পূজা মন্ডপের জন্য ১৮ জন ট্যাগ অফিসার নিয়োগ করা হয়েছে। এদিকে গোমস্তাপুর থানার ওসি শেখ শাহিন কামাল জানান,পূজা মন্ডপগুলোতে আইনশৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ১ জন করে পুলিশ অফিসারের নেতুত্বে পুলিশ ও আনসার বাহিনী সার্বক্ষনিক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এছাড়া প্রত্যেক ইউনিয়নে পুলিশের একটি করে ভ্রাম্যমান টিম কাজ করবে এবং ১ জন পুলিশ পরিদর্শকের নেতৃত্বে পুলিশ স্ট্যাইকিং ফোর্স হিসেবে কাজ করবে।