শ্রীলঙ্কায় বার্ষিক মুদ্রাস্ফীতির ঘাটতি ৭০% ছাড়িয়েছে

6

শ্রীলঙ্কার বার্ষিক মুদ্রাস্ফীতির হার আগস্ট মাসে ৭০% ছাড়িয়ে গেছে। মুদ্রাস্ফীতির হার উঠেছে ৭০.২ শতাংশে। দক্ষিণ এশিয়ার দ্বীপ দেশটি এখন ৭০ বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অর্থনৈতিক সংকটের সঙ্গে লড়ছে। দেশটির সরকারি তথ্য বলছে, খাবারের দাম এক বছর আগের তুলনায় ৮৪.৬ শতাংশ বেড়েছে। ২ কোটি ২০ লাখ জনসংখ্যার দেশ শ্রীলঙ্কা এ বছর চরম বৈদেশিক মুদ্রার ঘাটতিতে পড়ায় আর্থিক ও রাজনৈতিক বিশৃঙ্খলার মধ্যে পড়ে যায়। প্রয়োজনীয় পরিমাণ জ¦ালানি, সার ও ওষুধসহ জরুরি পণ্য আমদানি করতে পারছে না তারা। গত মাসে শ্রীলঙ্কার কেন্দ্রীয় ব্যাংক মুদ্রাস্ফীতি কমবে বলে আশা প্রকাশ করেছিল। কারণ মূল্যস্ফীতি প্রায় ৭০% এ ওঠার পর তখন দেশের অর্থনীতির গতি মন্থর হয়ে যায়। গত সপ্তাহে প্রকাশিত সরকারি পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, আগস্টের শেষ পর্যন্ত আগের তিন মাসে অর্থনীতি ৮.৪% সংকুচিত হয়েছে। করোনা মহামারির আগে শ্রীলঙ্কা ডলারসহ বিদেশি মুদ্রার জন্য পর্যটনের ওপর ব্যাপকভাবে নির্ভরশীল ছিল। কভিড ১৯ এর বিস্তার ঠেকাতে সীমান্ত বন্ধ করায় পর্যটক আসা বন্ধ হয়ে যায় যা দেশের অর্থনীতিতে বড় প্রভাব ফেলে। এর সঙ্গে বছরের পর বছর ধরে চলা আর্থিক অব্যবস্থাপনার কারণে এ বছরের শুরুতে শ্রীলঙ্কা প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক মহলে ঋণ খেলাপি হয়। সূত্র: বিবিসি