শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় মহান বিজয় দিবস উদযাপন

67

nahid-10-customnahid-23-customশ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় শুক্রবার ৪৫তম মহান বিজয় দিবস উদযাাপন করেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসী। প্রত্যুষে ৩১বার তোপধ্বনির মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু হয়। পরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পুরাতন স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে মহান বিজয় দিবসের নানা কর্মসূচির সূচনা করেন। সেখানে তিনি ও পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম পুলিশ, আনসার-ভিডিপিসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের কুচকাওয়াজ পরিদর্শন ও অভিবাদন গ্রহণ করেন।
মহান মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক ও সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয় শিক্ষার্থীরা এ সময় মাঠে ডিসপ্লের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলে। শিক্ষার্থীদের এমন পরিবেশনা উপভোগ করেন স্টেডিয়ামে উপস্থিত দর্শকরা।
এর আগে সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনের শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি নাম ফলকে ও বঙ্গবন্ধু মুক্তমঞ্চে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান, তার পরেই শ্রদ্ধা জানান পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম। এছাড়াও বঙ্গবন্ধু মুক্তমঞ্চে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মইনুদ্দীন মন্ডল ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওদুদ এমপির নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা ফুলেল শ্রদ্ধা জানান। জেলা প্রশাসকের কার্যলয়ের সামনের শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি নাম ফলক, বঙ্গবন্ধু মুক্তমঞ্চে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ও নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ শহীদ মিনারে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খ- খ- বিজয় মিছিল নিয়ে করে বিজয় দিবসে ফুলেল শ্রদ্ধা জানায়।
এদিকে বেলা ১২ টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের শাহ নেয়ামতুল্লাহ কলেজ মিলনায়তনে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১৩ জন রীরঙ্গনাসহ ৬৭ মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এরশাদ হোসেন খানের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান, বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সিরাজুল হক ও সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব রুহুল আমিন। সন্ধায় হরিমোহন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক) আবু জাফরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ এ কে এম মনজুর রেজা ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর সভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র সাইদুর রহমান। অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধের দিনগুলির কথা তুলে ধরেন, শিক্ষবিদ মার্জিনা হক, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সিরাজুল হক, মুক্তিযোদ্ধা মনিম দৌলা চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. আব্দুস সামাদ।
আলোচনা শেষে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করেন অতিথিরা। শেষে ছিল সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।
এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় :
এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ- দিবসটি উপলক্ষে র‌্যালি, পুষ্পস্তবক অর্পণ, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ও ক্যাম্পাসে আলোকসজ্জার আয়োজন করে। সকাল সাড়ে ৭টায় বিজয় র‌্যালি ক্যাম্পাস প্রাঙ্গন থেকে বের হয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে শহীদ মুক্তিয্দ্ধোাœ স্মৃতি নাম ফলকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।
এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ- মিলনায়তনে সকাল ১০ টায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন উপাচার্য প্রফেসর এবিএম রাশেদুল হাসান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবী মোসা. সালেহা বেগম। সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. মকবুল হোসেন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার, শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থী সহ আরোও অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।
এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি শিক্ষার্থীকে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা ও দেশপ্রেম নিয়ে কাজ করার আহবান জানানো হয়।
বালুগ্রাম কলেজ :
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর সপ্নের সোনার বাংলা গড়ার দৃঢ় প্রতয় নিয়ে শুক্রবার চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বালুগ্রাম আদর্শ কলেজে মহান বিজয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে।
দিবসটি উপলক্ষে রচনা, আবৃত্তি ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও অধ্যক্ষ বেলাল উদ্দিন মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা আয়োজন করা হয়। অধ্যক্ষ মোহা. মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অবসর প্রাপ্ত সিনিয়র সহকারী সচিব আলহাজ্জ মুহম্মদ মাহতাব উদ্দিন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপাধ্যক্ষ ন.স.ম. মাহবুবুর রহমান, সহকারী অধ্যাপক এ.কে.এম. রেজাউল করিম, প্রভাষক মোসাঃ রোকেয়া খাতুন এবং ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্য থেকে বক্তব্য রাখেন শাহিদা খাতুন ও বৃষ্টি আক্তার।
আলোচনা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। শেষে ছাত্র-ছাত্রীদের পরিবেশনায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।
আমাদের শিবগঞ্জ প্রতিনিধি জানান,
শুক্রবার জেলার শিবগঞ্জে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস উদযাপন করা হয়। ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিনের কর্মসুচির সুচনা হয়। শিবগঞ্জে উপজেলা পরিষদ চত্বরে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন সংসদ সদস্য মোহা. গোলাম রাব্বানী, এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সফিকুল ইসলাম ও ওসি (তদন্ত) সারওয়ার রহমানসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।
সকাল ৯ টায় শিবগঞ্জ স্টেডিয়ামে গোলাম রাব্বানী এমপি জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের অভিবাদন গ্রহণ ও কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করেন। পরে বিভিন্ন প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। বেলা সাড়ে ১১ টায় শিবগঞ্জ সরকারি মডেল হাই স্কুলে প্রাঙ্গনে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার, যুদ্ধাহত ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। অন্যদিকে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক আলোচনা সভা, র‌্যালী, চিত্রাংকন, দেশাত্মবোধক সংগীত ও রচনা প্রতিযোগীতাসহ নানা কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।
এতে প্রধান অতিথীর বক্তব্য রাখেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ (শিবগঞ্জ)-১ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম রাব্বানী এম পি প্রমুখ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোঃ শফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ আতাউর রহমান, পৌর মেয়র এ আর এম আজরি কারিবুল হক রাজিন প্রমুখ।
আমাদের নাচোল প্রতিনিধি মতিউর রহমান জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে যথাযোগ্য মর্যদায় বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে মহান বিজয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে ৩১বার তোপধ্বনিন মাধ্যমে দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। এসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সাংসদ মু. গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস। এছাড়াও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম, নাচোল সরকারী ডিগ্রী কলেজের (ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা) হাফিজুর রহমান, মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ ওবাইদুর রহমান, পৌর মেয়র আব্দুর রশিদ খান ঝালু, নাচোল থানার অফিসার ইনচার্জ ফাছির উদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান, ও জান্নাতুন নাইম মুন্নী উপস্থিত ছিলেন। পরে মুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারবর্গের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।
আমাদের ভোলাহাট ভোলাহাট প্রতিনিধি জানান,
জেলার ভোলাহাট উপজেলায় দিবস উদ্যাপন উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে। কর্মসূচির মধ্যে ছিল সূর্যোদয়ের সাথে উপজেলা সমুন্নত স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণে ৩১বার তোপধ্বনি, শহীদদের স্মরণে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ, আলোচনা, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রভৃতি। এসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন ইয়াসমিন। উপজেলা প্রশাসন ছাড়াও আওযামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনসহ অন্যন্য প্রতিষ্ঠান নানা কর্মসূচির আয়োজন করে।
আমাদের গোমস্তাপুর প্রতিনিধি আল মামুন বিশ্বাস জানান, চাঁপাইনববাগঞ্জের গোমস্তাপুরে নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে মহান বিজয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন, রহনপুর পৌরসভা, গোমস্তাপুর উপজেলা ও রহনপুর পৌর আওয়ামীলীগ,বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ডাসকোসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান,রাজনৈতিক,সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা কর্মসূচী পালন করে। কর্মসূচির মধ্যে ছিল দিনের শুরুতে তোপধ্বনীর মাধ্যমে দিবসের সূচনা, উপজেলা চত্বরস্থ মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পার্ঘ অর্পণ, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও শহীদ পরিবারবর্গকে বিশেষ উপহার, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সকালে রহনপুর এবি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেরা প্রশাসন আয়োজিত নানা কর্মসূচীতে অংশ নেয় স্থানীয় জাতীয় সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বাইরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার কেএম আলমগীর কবীর, রহনপুর পৌর মেয়র তারিক আহমদ, সহকারী পুলিশ সুপার, গোমস্তাপুর সার্কেল এটিএম মাইনুল ইসলাম প্রমুখ।