শেষ মুহূর্তে ফিলিস্তিনের জন্য অর্থ ছাড় করে গেছেন ওবামা

102

3+Obama-departsযুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব ছাড়ার আগে একেবারে শেষ মুহূর্তে বারাক ওবামা ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের জন্য বরাদ্দের ২২ কোটি ১০ লাখ ডলার ছাড় করে গেছেন বলে খবর দিয়েছে যুক্তরাজ্যের ইনডিপেনডেন্ট। গত ২০ জানুয়ারি নতুন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দায়িত্ব নেওয়ার ঘণ্টাখানেক আগে ওই অর্থ ছাড় করার আদেশে ওবামা সই করেন। এই অর্থ পশ্চিম তীর ও গাজায় মানবিক সাহায্য, ফিলিস্তিন সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প ও রাজনৈতিক সংস্কারে ব্যবহৃত হওয়ার কথা। ইনডিপেনডেন্ট লিখেছে, যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসের রিপাবলিকান সদস্যরা ওই বরাদ্দ আটকানোর চেষ্টা করলেও সফল হননি। সাধারণত এ ধরনের ক্ষেত্রে নির্বাহী বিভাগ কংগ্রেস সদস্যদের সিদ্ধান্তকে গুরুত্ব দিলেও আইনি বাধ্যবাধকতা না থাকায় ওবামার পক্ষে টাকা ছাড়ের বিষয়টি নিশ্চিত করতে বেগ পেতে হয়নি।
ফিলিস্তিনের জন্য টাকা ছাড় করার এ সংবাদ এমন এক সময়ে এল যখন ট্রাম্প প্রশাসন ইসরায়েলে তাদের দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে স্থানান্তরের পরিকল্পনা নিয়ে ‘প্রাথমিক আলোচনা’ শুরুর কথা জানিয়েছে। এ ঘোষণায় ইসরায়েল কর্তৃপক্ষ খুশি হলেও ফিলিস্তিন সরকার হুঁশিয়ার করে বলেছে, যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস বিরোধপূর্ণ জেরুজালেমে নেওয়ার চেষ্টা করলে তা শান্তির সব পথ বন্ধ করে দেবে। হোয়াইট হাউজ জানিয়েছে, রোববার ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে ট্রাম্পের টেলিফোনে কথা হলেও সেখানে দূতাবাস সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে আলোচনা হয়নি।
ইনডিপেনডেন্ট জানিয়েছে, ফিলিস্তিনকে টাকা দেওয়ার পাশাপাশি দায়িত্বের শেষ কয়েক ঘণ্টায় জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলার একটি প্রকল্পের ৪০ লাখ ডলার এবং জাতিসংঘের কয়েকটি সংস্থার জন্য বরাদ্দ সাড়ে ১২ লাখ ডলারও ছাড় করে গেছেন ওবামা। জাতিসংঘকে দেওয়া ওই অর্থ যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধ, ওজন স্তরের ক্ষয় রোধ ও শন্তি মিশনে ব্যয় হওয়ার কথা।