শীতের আগমনী বার্তা জানাচ্ছে ফুটপাতে গরম কাপড় বিক্রি

22

উত্তর-পশ্চিমের জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জে এখন শীতের আমেজ। দিনের বেলা তাপমাত্রা বেশি থাকলেও সন্ধ্যার পর থেকে বদলে যাচ্ছে রাতের তাপমাত্রা। ভোরে কুয়াশার সঙ্গে শীতের আবহ বেশ আঁচ করা যাচ্ছে।
এরই মধ্যে গরম কাপড়ে কেনার জন্য ক্রেতারা দোকানে দোকানে ঘুরছেন। জেলার অভিযাত দোকানগুলোর পাশাপাশি শহরের ফুটপাতে বিক্রেতারা গরম কাপড়ের পসরা নিয়ে বসছেন। নিম্নআয়ের মানুষ ফুটপাত থেকে সাধ্যের মধ্যে ক্রয় করছেন সোয়েটারসহ অন্যান্য গরম কাপড়।
বরাবরের মতো এবারো জেলাশহরের হরিমোহন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাচীর ঘেঁষে প্রতিদিন বসছে বেশ কয়েকটি পুরাতন গরম কাপড়ের দোকান। নিউ মার্কেট, ক্লাব সুপার মার্কেট, আব্দুল মান্নান সেন্টু মার্কেট ও শহিদ সাটুহল মার্কেট সংলগ্ন এই জায়গাটিতে বিক্রেতারা সকাল থেকে রাত অবধি বিক্রি করছেন শিশুসহ বড়দের পুরাতন সোয়েটারসহ অন্যান্য গরম কাপড়। তবে বেশির ভাগই সোয়েটার বিক্রির তালিকায় রয়েছে। সকালের চেয়ে বিকেলে ক্রেতাদের আনাগোনা বেশি লক্ষ্য করা গেছে।
ছোট বাচ্চাদের একটি সোয়েটার ১শ টাকা থেকে ২শ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে বলে বিক্রেতারা জানিয়েছেন। তবে বড়দেরগুলো দাম একটু বেশি বলে তারা জানান।
তাসীন নামের তরুণ বিক্রেতা বলেন- দাম গতবারের চেয়ে সামান্য বেশি। বেচাকেনা টুকটাক হচ্ছে। তবে শীতের প্রকোপ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিক্রিও বেড়ে যাবে।
এদিকে গরম কাপড় ক্রয় করতে আসা তানজিলা খাতুন জানান, নিম্নমধ্যবিত্তদের শীত নিবারণের জন্য ফুটপাতই ভরসা। অপেক্ষাকৃত অনেক কম দামেই ফুটপাতে গরম কাপড় কিনতে পাওয়া যায়। আর এবার নিত্যপ্রয়োজনী দ্রব্যের যে দাম, তাতে দোকান থেকে গরম কাপড় কেনাই দায়। তিনি এও জানান, ফুটপাতে মাঝে মধ্যেই অনেক ভালো ভালো শীতবস্ত্র পাওয়া যায়, যেগুলো মার্কেটের কোনো দোকানে কিনতে গেলে দাম বেশি পড়ে। তানজিলা আরো জানান, তিনি আজকে কোনো গরম কাপড় কিনতে পারেননি পছন্দ হয়নি বলে। অন্যদিন এসে গরম কাপড় পছন্দ করে কেনার চেষ্টা করবেন বলে জানান।