শিল্পী সমিতির নির্বাচন জমে ওঠেছে

29

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে জমে ওঠেছে এফডিসি। এরইমধ্যে ঘোষিত হয়েছে নির্বাচনের তারিখ এবং নির্বাচন কমিশনারদের নাম। পেস্টারে পোস্টারে ছেয়ে গেছে এফডিসির অলিগলি। দীর্ঘদিন পর নির্বাচনের চূড়ান্ত পরিবেশ সৃষ্টি হওয়ায় সাধারণ শিল্পীদের মধ্যেও বিরাজ করছে অন্যরকম এক উচ্ছ্বাস, উৎসাহ ও উদ্দীপনা। প্রযোজক, পরিচালক ও শিল্পী সমিতিসহ বিভিন্ন সংগঠনের অফিস, ক্যান্টিন, আড্ডা এমনকি শুটিংয়ের ফ্লোরে কাজের ফাঁকে ফাঁকে নির্বাচন নিয়ে চলছে আলোচনা। নির্বাচন উপলক্ষে প্রার্থীদের আনাগোনাও বেশ চোখে পড়ার মতো। যদিও এখন পর্যন্ত অনেক প্রার্থীই চূড়ান্ত ঘোষণা দেননি, তবে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ভেতরে ভেতরে জোর প্রচারণা চালাচ্ছেন। কেউ কেউ আবার নিজেদের প্রার্থিতার আভাস দিয়ে ভোটারদের মতামত আদায়ের চেষ্টা করছেন। জানা গেছে, আগামি ১৮ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে এ সমিতির দ্বিবার্ষিক নির্বাচন। তফসিল ঘোষণা না হলেও ২০১৯-২০২০ মেয়াদের কার্যনির্বাহী কমিটিতে নির্বাচিত হতে লড়তে যাচ্ছেন চলচ্চিত্রের একঝাঁক প্রিয়মুখ। এবারের নির্বাচনে বেশ কিছু চমকও রয়েছে। প্রথমবারের মতো নারী সভাপতি হিসেবে নির্বাচনে লড়ার ঘোষণা দিয়েছেন চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়িকা মৌসুমী। শোনা যাচ্ছে, মৌসুমীর সঙ্গে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে লড়বেন চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক। একই প্যানেলে থাকছেন রিয়াজ ও ফেরদৌস। যদিও বিষয়গুলো চূড়ান্ত হয়নি। চিত্রনায়িকা মৌসুমির স্বামী ওমর সানী সভাপতি পদে নির্বাচন করবেন বলে শোনা গেলেও শেষ পর্যন্ত তিনি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। এ প্রসঙ্গে ওমর সানী বলেন, ‘একক সিদ্ধান্ত নিয়ে নির্বাচন হয় না। প্রত্যেকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নির্বাচনে অংশ নিতে হয়। সেই ক্ষেত্রে আমার যারা সিনিয়র শিল্পী আছেন তাদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছি এবং মৌসুমী সভাপতি পদে লড়বেন। অন্যদিকে গতবারের মতো এবারও মিশা সওদাগরকে সভাপতি প্রার্থী করে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হবেন জায়েদ খান। অপরদিকে মৌসুমী ও মিশা সওদাগরের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আগ্রহ প্রকাশ করেছেন চিত্রনায়ক রুবেল। তিনি বলেন, ‘শুনেছি কয়েকজন এরইমধ্যে সভাপতি পদে নির্দিষ্ট কোনো প্যানেলের পক্ষে প্রার্থী হবেন। আমিও এ নিয়ে ভাবছি। পরিস্থিতি বুঝে আমি এ নির্বাচনে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে মনোনয়নপত্র কিনব।’ তবে কোনো প্যানেলের পক্ষে নয়। একাই এ পদে লড়বেন বলে জানিয়েছেন রুবেল। তিনি বলেন, ‘এটি ঠিক তখনই হবে যখন দেখব চলচ্চিত্রে ভালোবাসার মতো মানুষ কেউ প্যানেল করেনি, তবে একাই আমি নির্বাচন করব। সভাপতি পদে নির্বাচন করবেন- এমন খবর ঘুরে বেড়ালেও এবার নির্বাচন করছেন না শাকিব খান। এর আগে শাকিব খানকে সভাপতি কিংবা সাধারণ সম্পাদক পদে নিয়ে নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন অমিত হাসান। তবে এবার নির্বাচন করবেন কিনা- তা এখনো নিশ্চিত করতে পারছেন না বলে গতকাল জানিয়েছেন অমিত হাসান। তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে নির্বাচন নিয়ে কিছু জানাতে পারছি না। দুই দিন পর সিদ্ধান্ত নেব নির্বাচন করব কি-না।’ অনেক আগে থেকেই শোনা যাচ্ছে ডি এ তায়েব নির্বাচন করবেন। এবারের নির্বাচনে পপি, পূর্ণিমার নাম এলেও এখনো বিষয়টি চূড়ান্ত করেননি এই দুই নায়িকা। এবারের শিল্পী সমিতির নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান। এদিকে ৪ অক্টোবর বিগত দুই বছরের সমিতির কাজের হিসাব-নিকাশের ওপর প্রতিবেদন পেশ করা হবে। ওই দিন সমিতির ২১টি পদের নির্বাচনী তফসিলও ঘোষণা করা হবে।