শিবগঞ্জ সীমান্তে গুলিতে নিহত ১

14

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার শিংনগর সীমান্তে গুলিতে এক বাংলাদেশীর মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে বিজিবির পক্ষ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়নি।
নিহত ব্যক্তি উপজেলার মনাকষা ইউনিয়নের মুন্সিপাড়া গ্রামের তাজুল ইসলাম তাজুর ছেলে ভদু (৪০)। এ সময় আরো ২ জন গুলিবিদ্ধ হয়ে পালিয়ে এসে আত্মগোপনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। তবে আহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি।
মনাকষা ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য ও স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে শরিফুল ইসলাম ও একই এলাকার শহীদুল ইসলাম এবং বাবুসহ ৪/৫ জন অবৈধভাবে শিংনগর সীমান্তের পদ্মা নদী সংলগ্ন ছেলেখাকি এলাকা দিয়ে ভারতে ঢোকার চেষ্টা করে। এসময় ভারতের দৌলতপুর ক্যাম্পের বিএসএফ জোয়ানরা গুলি ছুড়লে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।
মনাকষা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মির্জা শাহাদাত হোসেন খুররম বলেন, খবর পেয়ে ইউনিয়ন পরিষদ সচিবকে মুন্সিপাড়া পাঠিয়েছিলাম। গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছে বলে শোনা গেছে। তবে এখনো লাশ পাওয়া যায়নি। সম্ভবত লাশ ওপারে (ভারতে) পড়ে আছে। আহত দুজন হয়তো গোপনে চিকিৎসা নিচ্ছে।
এদিকে, ভদুর পিতা তাজুল ইসলাম তাজু বলেন, ‘সীমান্তের ১৭২ নম্বর পিলারের কাছে ভদুর মরদেহ পড়ে আছে বলে খবর পেয়েছি। আমার ছেলে রাজমিস্ত্রির কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে। ক’দিন আগে ঢাকা থেকে রাজমিস্ত্রির কাজ শেষে বাড়ি ফিরেছে। গতরাতে কার সাথে গেছে, কেন গেছে তা বলতে পারিছি না।’
এ ব্যাপারে ৫৩ বিজিবির চাঁপাইনবাবগঞ্জ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল নাহিদ হোসেন বলেনÑ সীমান্তে হতাহতের ব্যাপারে শুনেছি। তবে পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। সীমান্ত এলাকায় বিজিবির টহলদল তন্নতন্ন করে ঘুঁজেও কোনো মরদেহ পায়নি। বিএসএফের পক্ষ থেকেও এ ধরনের কোনো তথ্য আমাদের দেয়নি।