শিবগঞ্জে ফসলি জমির মাটি কাটার কাজ বন্ধ করলেন ভ্রাম্যমাণ আদালত

21

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে ফসলি জমির মাটি কাটার কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। গত শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে উপজেলার চর কানছিড়া এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়। এতে নেতৃত্ব উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবুল হায়াত।
ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে- গত এক সপ্তাহ থেকে উপজেলার চর কানছিড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পেছনে তিন ফসলি জমির মাটি কাটা কাজ শুরু করে স্থানীয় একটি সিন্ডিকেট। এতে হুমকিতে পড়ে পাশর্^বর্তী ফসলি জমি ও বিদ্যালয়টি। অতিরিক্ত মূল্যের প্রলোভন দেখিয়ে চর কানছিড়া গ্রামের মৃত তোবজুল হকের ছেলে সোনাদ্দি ও আট রশিয়া গ্রামের বিয়ন মন্ডলের ছেলে দুরুল হোদার নিকট ফসলি জমির মাটি ক্রয় করে ওই প্রভাবশালী সিন্ডিকেট। মাটি কাটার কাজ শুরুর খবর পেয়ে স্থানীয় প্রশাসনের উদ্যোগে তাৎক্ষণিক ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে একটি ড্রেজার মেশিন অকেজো করে দেয়া হয়। পরবর্তীতে আবারো রাতের আঁধারে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে অবাধে চলে ফসলি জমির মাটি কাটার কাজ। শনিবার রাতে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবুল হায়াতের নেতৃত্বে ফসলি জমির মাটি কাটার কাজ বন্ধের পাশাপাশি ৮-১০টি ট্রাক্টর ও দুটি ড্রেজার মেশিন অকেজো করে দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবুল হায়াত জানান, ফসলি জমির মাটি কেটে পুকুর খনন বা মাটি বিক্রি করা যাবে না। এমনকি জমির শ্রেণি পরিবর্তন করা যাবে না। প্রশাসন এ বিষয়ে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। প্রতিনিয়ত অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় রাতে বোগলাউড়ি-চর কানছিড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৮ থেকে ১০টি ট্রাক্টর ও দুটি ড্রেজার মেশিন অকেজো করা হয়েছে। ভবিষ্যতে এ ধরণের অপরাধ করলে প্রশাসন কঠোর আইনানুগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।