শিবগঞ্জে ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতি

7

চাঁপাইনবাবগঞ্জের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে আমের ক্ষতিটাই বেশি। বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা থেকে ৭টা পর্যন্ত জেলার ৫ উপজেলায় ঝড় ও বৃষ্টিতে ক্ষয়ক্ষতি হয় বলে কৃষি বিভাগ ও ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা জানিয়েছে। বিশেষ করে জেলার শিবগঞ্জ ও ভোলাহাট উপজেলায় ঝড়ের তীব্রতা বেশি থাকায় সেখানে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক বেশি।
শিবগঞ্জ উজেলার সত্রাজিতপুর, শিবগঞ্জ, নয়ালাভাঙ্গা মনাকষা, পাঁকা, চককীর্তি ও কানসাট ইউনিয়নে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ভোর সাড়ে ৬টা থেকে অধাঘণ্টার ঝড় ও বৃষ্টিতে পেঁপে, আম, সবজি ও কলার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এ উপজেলায় শুধু আমের ক্ষতিই ৫ কোটি টাকার বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। আমের সাইজ বড় হওয়ায় এবং পাকার উপক্রম হওয়ায় এ ক্ষয়ক্ষতি বেশি বলে মনে করছেন কৃষকরা।
শিবগঞ্জ পৌর এলাকার আমচাষি ইসমাইল খান শামিম বলেন, এ বছর এমনিতেই আমের উৎপাদন কম। তার ওপর অসময়ের ঝড়ে শুধু আম নষ্ট হয়নি, পরিচর্যা খরচও পানিতে গেছে। এতে করে অনেকেই ক্ষতিগ্রস্ত হবে। বিশেষ করে যাদের আম বিক্রির অগ্রিম অর্ডার নেয়া ছিল তারা ব্যাপক ক্ষতি ও লোকসানের মুখে পড়বে।
চককীর্তির আমচাষি জাহাঙ্গীর বিশ^াস জানান, তার ৫টির মধ্যে ২টি বাগানে আম ছিল। এর মধ্যে একটি বাগানের অর্ধেক আম পাড়তে পাড়লেও অপরটি ফজলি ও আশি^না আমের বাগান হওয়ায় বাগানটির ৭০ ভাগ আমই ঝড়ে পড়ে গেছে।
শাহবাজপুরের আমচাষি ইসরাঈল হোসেন জানান, গত ৩ দিন আগে তার দেড় বিঘার আশি^না বাগানটির দাম ৪০ হাজার টাকা বললেও ঝড়ের পর ওই ব্যবসায়ী মাত্র ১০ হাজার টাকায় বাগানটি নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন। তিনি আরো জানান, আমের পরিচর্যা খরচই ২০ হাজার টাকা হওয়ায় তিনি লোকসানের মুখে পড়েছেন।
শিবগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিসার শরিফুল ইসলাম জানান, তার উপজেলায় আকস্মিক এ ঝড়ে পেঁপে ৯ হেক্টর, কলা ২৫ হেক্টর, সবজি ৭০ হেক্টর এবং আম ১৫০০ হেক্টর জমির ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আমচাষিসহ ২৬০০ কৃষক এ ঝড়ে ক্ষতির মুখে পড়েছে। আর এ উপজেলার ১ হাজার ৪০০ মেট্রিক টন আম ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে। যার মূল্য প্রায় ৫ কোটি টাকা।
অপরদিকে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক নজরুল ইসলাম জানান, এ সময়ে এ গতির ঝড় খুবই বিরল। আবহাওয়ার এ পরিবর্তনের কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে আমে। তিনি আরো জানান, জেলার সদর, নাচোল ও গোমস্তাপুর উপজেলায় ক্ষয়ক্ষতি কম হলেও শিবগঞ্জ ও ভোলাহাটে ঝড়ের তীব্রতা বেশি এবং আমবাগান বেশি হওয়ায় ক্ষতির পরিমাণও বেশি।