লিপজিগকে হারিয়েছে সিটি

12

দুই গোলে পিছিয়ে পড়েও মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বে আরবি লিপজিগকে ৩-২ ব্যবধানে পরাজিত করে জয়ের ধারা ধরে রেখেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটি। এই ম্যাচে গোল করে সিটির নরওয়েজিয়ান তরুণ আর্লিং হালান্ড ইউরোপিয়ান সর্বোচ্চ ক্লাব আসরে দ্রুততম সময়ে ৪০ গোল করার রেকর্ড গড়েছেন। ২০১৮ সালের পর ইত্তিহাদ স্টেডিয়ামে প্রথম ইউরোপিয়ান পরাজয়ের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গিয়েছিল সিটিজেনরা। প্রথমার্ধে লোয়িস ওপেন্ডার দুই গোলে লিপজিগ এগিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে হালান্ড, ফিল ফোডেন ও জুলিয়ান আলভারেজের গোলে শেষ পর্যন্ত পয়েন্ট হারাতে হয়নি পেপ গার্দিওলার দলকে।

এই জয়ে পাঁচ ম্যাচে পূর্ণ ১৫ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষ দল হিসেবেই নিজেদের ধরে রেখেছে সিটি। ম্যাচ শেষে ফোডেন স্বীকার করেছেন প্রথমার্ধটা অত্যন্ত বাজে ছিল। দ্বিতীয়ার্ধে পুরো দল ফিরে এসে পুরো ম্যাচের চিত্র পাল্টে দেয়। এই দলের মানসিকতারও প্রশংসা করেছেন তিনি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিজেদেও মাঠে এনিয়ে সিটি শেষ ২৯ ম্যাচের ২৭টিতেই জয়ী হয়েছে। এই যাত্রায় নিয়মিত ভাবেই লিপজিগকে পরাজিত করেছে তারা। এর আগে মার্চে ইত্তিহাদ সফরে জার্মান দলটি ৭-০ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছিল। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে গার্দিওলা ঠিকই টানেলে অপর প্রান্তের আলোটা দেখতে পেয়েছিলেন। আরো একবার তার দল প্রমান করেছে কেন ইউরোপিয়ান ফেবারিটটের হটিয়ে তার দল গত আসরে শিরোপা জিতেছিল।

৫৪ মিনিটে হালান্ড তার স্বভাবসুলভ ভঙ্গীমায় সিটি শিবিরে স্বস্তি ফেরান। যদিও তখনো সমতা না ফেরায় কিছুটা অস্বস্তি তো ছিলই। ৩৫ ম্যাচে এটি হালান্ডের ৪০তম গোল। ম্যাচ শেষের ২০ মিনিটে আগে জোসেপ গাভারডিওলের পাস থেকে ফোডেন সিটির পক্ষে সমতা ফেরান। লিভারপুল থেকে ধারে খেলতে আসা ফ্যাবিও কারভালহো গোল করলে লিপজিগ ভেবেছিল আবারো তারা সমতায় ফিরছে। কিন্তু অফসাইডের কারণে সেই গোল বাতিল হয়ে যায়। ৮৭ মিনিটে ফোডেনের লো ক্রসে আলভারেজ দারুনভাবে বল নিয়ন্ত্রনে নিয়ে জালে জড়ালে সিটির জয় নিশ্চিত হয়। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এবারের মৌসুমে চার ম্যাচ খেলা আলভারেজের এটি চতুর্থ গোল। এই গ্রুপ থেকে ইতোমধ্যেই শেষ ষোল নিশ্চিত করেছে লিপজিগ। তাদেরকে এখন নক আউট পর্বে বার্সেলোনা কিংবা রিয়াল মাদ্রিদের কোন একটি দলকে মোকাবেলা করতে হবে।