লাক্স-কান উৎসব

99

04

কানের লালগালিচায় কোন পোশাক পরে আসবেন তা নিয়ে অপ্রস্তুতই ছিলেন ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন। এর মধ্যেও যুতসই পোশাকই বেছে নিতে পেরেছেন প্রাক্তন এই বিশ্বসুন্দরী। সব চোখ আটকে গিয়েছিলো তার দিকেই। শুক্রবার উৎসবের ৬৯তম আসরের তৃতীয় দিনে অ্যাশ দ্যুতি ছড়ালেন লালগালিচায়। ৪২ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী পয়লা দর্শনেই কান মাতালেন। জ¦লজ¦লে মেঝে ছোঁয়া গাউনে তার উপস্থিতি ছিলো চোখ ধাঁধানো। এই পোশাককে ঐশ্বরিয়ার সাহসী বাছাই হিসেবে দেখা হচ্ছে। কারণ নিজেকে কেমন দেখাবে তা নিয়ে খুব একটা নিরীক্ষা করেন না তিনি। সচরাচর ইলি সাব, রবার্তো ক্যাভালি কিংবা আরমানির ডিজাইনের ওপরই আস্থা রাখেন বচ্চন পরিবারের বধূ। কিন্তু তার এবারের গাউনটির ডিজাইনার কুয়েতের আলি ইউনুস। এদিন লালগালিচায় পা মাড়ানোর পর ফরাসি ছবি ‘স্লেক বে’র প্রদর্শনীতে অংশ নিয়েছেন অ্যাশ। তার নতুন ছবি ‘সর্বজিৎ’-এর উদ্বোধনী প্রদর্শনী হবে কানের ভারতীয় প্যাভিলিয়নে। ওমাঙ কুমার পরিচালিত এ ছবির জন্যই তুমুল ব্যস্ততা যাচ্ছে তার। এ কারণে কানের জন্য খুব একটা প্রস্তুতি নিতে পারেননি তিনি। শুক্রবারেই লালগালিচায় হাঁটার কয়েক ঘণ্টা আগে দক্ষিণ ফ্রান্সের শহরটিতে পা রেখেছেন অভিষেক-ঘরণি। মুম্বাই ছাড়ার আগে ঐশ্বরিয়া সাংবাদিকদের জানিয়ে রাখেন, এখনও পোশাক নির্বাচন করতে পারেননি তিনি। এ নিয়ে ঘুম হারাম করতেও চান না তিনি। তার ভাষ্য ছিলো, ‘আমাকে নিয়ে যতো ইচ্ছে হাসাহাসি কিংবা ট্রল করতে পারেন!’
না, হাসাহাসি হয়নি। উল্টো ঐশ্বরিয়ার রুচি আর সৌন্দর্যের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সবাই। এ নিয়ে ১৫বার কান উৎসবে অংশ নিলেন তিনি। এবারও তিনি মূলত লরিয়াল প্যারিসের দূতিয়ালি করতেই এসেছেন। সঙ্গে আছে চার বছর বয়সী একমাত্র কন্যাসন্তান আরাধ্য ও মা বৃন্দা রাই।